করোনা আক্রান্ত সোনু সুদ, দিকে দিকে হাহাকারের মাঝে ‘অসহায়’ অভিনেতা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: গত বছর করোনাকালে তিনিই হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন পরিযায়ী শ্রমিকদের ত্রাতা। দেশ জুড়ে অতিমারীর মাঝে ভরসা জুগিয়েছিলেন গরিবদের মনে। কিন্তু নির্ভরতার আরেক নাম সেই সোনু সুদকেই এবার কাবু করল করোনা। শনিবার সকালে তাঁর পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে। অতিমারী আবহে এখন রীতিমতো ‘অসহায়’ বোধ করছেন অভিনেতা। করোনার দাপট ‘হিরোর’ কপালেও ফেলেছে গভীর চিন্তার ভাঁজ।

শনিবার সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের করোনা সংক্রমণের খবর দিয়েছেন সোনু সুদ। ট্যুইটারে তিনি জানিয়েছেন, “আজ সকালে আমার করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। আমি নিজেকে আইসোলেশনে রেখেছি।” তবে ভক্তদের তাঁর শারীরিক অবস্থা নিয়ে একেবারেই চিন্তা করতে মানা করেছেন অভিনেতা। বরং আইসোলেশনের এই সময়টাকেও তিনি কাজে লাগাতে চান। তাঁর কথায়, “আপনারা চিন্তা করবেন না। এতে আমি আপনাদের সমস্যা সমাধান করার আরও বেশি সময় পেলাম। মনে রাখবেন, আমি সবসময় আপনাদের সকলের পাশে আছি।”

সোনু সুদের করোনা সংক্রমণের খবরে ইতিমধ্যেই চিন্তিত হয়েছেন তাঁর ভক্তরা। একযোগে সকলে তাঁর দ্রুত সুস্থতা কামনা করেছেন। এদিন দেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ আর নিজের অসহায়তার কথাও জানিয়েছেন সোনু সুদ।

দেশ জুড়ে আছড়ে পড়েছে করোনা অতিমারীর দ্বিতীয় ঢেউ। আর তাতে এদেশের স্বাস্থ্য পরিকাঠামোর বেহাল দশাটা আরও একবার নগ্ন হয়ে পড়েছে। দিকে দিকে কেবল শোনা যাচ্ছে হাহাকার। কোথাও হাসপাতালের বেড, কোথাও বা ওষুধ আর ইনজেকশন, অসহায় হয়ে সোনু সুদের দ্বারস্থ হচ্ছেন অনেকেই। সারা দেশের মানুষের এই বিপুল পরিমাণ চাহিদা মেটাতে গিয়েই হিমশিম খাচ্ছেন অভিনেতা।

ট্যুইটারে এদিন সোনু সুদ লিখেছেন, “সকাল থেকে আমি আমার ফোনটা এক মুহূর্তের জন্যেও বন্ধ রাখতে পারিনি। সারা দেশ থেকে হাজার হাজার ফোন আসছে আমার কাছে। হাসপাতালের বেড, ওষুধ, ইনজেকশনের জন্য চারিদিকে হাহাকার পড়ে গেছে। আমি সকলকে সাহায্য করতে পারিনি। খুব অসহায় লাগছে।”

পরিস্থিতির ভয়াবহতার কথা মনে করিয়ে দিয়ে সবাইকে আরও একবার সতর্ক হতে অনুরোধ করেছেন সোনু সুদ। “পরিস্থিতি হাতের বাইরে চলে যাচ্ছে। দয়া করে বাড়িতে থাকুন। মাস্ক পড়ুন। নিজেকে সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচান”, বলেছেন তিনি।

এখানেই শেষ নয়, মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য এগিয়ে আসতেও ভক্তদের অনুরোধ করেছেন সোনু সুদ। অন্য একটি ট্যুইটে তিনি লিখেছেন, “আমি তো চেষ্টা করছি। কিন্তু আপনারাও যদি এগিয়ে আসেন সবাই মিলে আমরা আরও বেশি জীবন বাঁচাতে পারবো। এটা কাউকে দোষারোপ করার সময় নয়। বরং এগিয়ে আসুন, যাঁর সাহায্যের দরকার তাঁকে সাহায্য করুন। ওষুধপত্রের ব্যবস্থা করে দিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়ান। আমি সবসময় আপনাদের পাশে আছি। আসুন আমরা সবাই মিলে জীবন বাঁচাই।”

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More