আইএসএলের অভিষেক ডার্বিতে কোচ ফাউলার ক্যাপ্টেন করলেন স্বদেশীয় ড্যানি ফক্সকে, ব্রাত্য ঘরের ছেলেরা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আইএসএলের অভিষেক বড় ম্যাচে শুক্রবার ইস্টবেঙ্গলের অধিনায়কত্ব করবেন ব্রিটিশ তারকা ড্যানি ফক্স। সহ নেতৃত্বের ভার দেওয়া হয়েছে অ্যান্টনি পিলকিনটনকে। অর্থাৎ এক ব্রিটিশ ও এক আইরিশের হাতেই দায়িত্ব দিচ্ছেন ইংল্যান্ডের নামী প্রাক্তন তারকা ফাউলার।

মোহনবাগান কোচ আন্তোনিও লোপেজ হাবাস প্রথম ম্যাচে ঘরের ছেলে প্রীতম কোটালকে অধিনায়কের আর্মব্যান্ড তুলে দিয়েছিলেন। তাতে প্রশংসিত হয়েছিলেন স্প্যানিশ কোচ। কারণ আইএসএল এই প্রথম খেলছে কলকাতার দুটি নামী দল। সেই ঐতিহাসিক মুহূর্তে ঘরের ছেলেদের সম্মান দিতে কুন্ঠা করেননি হাবাস।

সেই কারণেই প্রীতমকে দুইদিন আগেই বলে দিয়েছিলেন, তুমি তৈরি থেক, তোমাকেই প্রথম ম্যাচে দলের অধিনায়কত্ব করতে হবে। কিন্তু লাল হলুদের হেডস্যার ফাউলার আবেগহীনভাবে পেশাদারী ঢঙে বেছে নিয়েছেন দলের তারকা বিদেশী ইংলিশ জাত স্কটিশ ড্যানিকে।

৩৪ বছরের স্কটিশ ফুটবলার এই বছর ইস্টবেঙ্গলে যোগ দিয়েছেন উইগান অ্যাথলেটিক থেকে। রক্ষণভাগের এই অভিজ্ঞ ফুটবলারই নেতৃত্ব দেবেন লাল-হলুদকে। ফক্সের ডেপুটি থাকবেন আইরিশ তারকা পিলকিনটন। তিনি ফক্সের সতীর্থ ছিলেন উইগান এসি-তে খেলার সময়।

ইস্টবেঙ্গল অধিনায়ক ফক্স স্কটল্যান্ডের জাতীয় দলের হয়ে খেলেছেন ৪টি ম্যাচ। উইগান ছাড়াও তিনি খেলেছেন এভার্টন,  সেলটিক,  বার্নলে,  সাউদাম্পটনের মতো ক্লাবে। মোহনবাগানের বিরুদ্ধে তিনি চার নম্বর জার্সি পরে খেলতে নামবেন।

পিলকিনটন খেলেছেন আয়ারল্যান্ডের জাতীয় দলের হয়ে ৯টি ম্যাচ। মূলত মাঝমাঠের এই ফুটবলারের জাতীয় দলের হয়ে একটি গোলও রয়েছে। ব্ল্যাকবার্ন রোভার্স, নরউইক সিটি, কার্ডিফ সিটির মতো দলে খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে তাঁর।

এদিকে, ডার্বিতে ৩-৫-২ ফর্মেশনে দলকে খেলানোর কথা চিন্তাভাবনা করছেন কোচ ফাউলার। তিনি লিভারপুলে থাকার সময় ওই ছকে খেলেছেন। তাঁর কৌশল হল, উইং ব্যাকরা যেমন নীচে নেমে রক্ষণকে জমাট করতে সাহায্য করবে। আবার একইসঙ্গে সেই উইং ব্যাকরাই মুহুর্মুহু ওভারল্যাপে গিয়ে আক্রমণেও লোক বাড়াবে।

ফাউলার নিজে যেমন স্ট্রাইকার ছিলেন, তেমনি আবার দলকে খেলাতে ভালবাসেন আক্রমণাত্মক ফুটবলে, কিন্তু তিনি পালটা আক্রমণ নির্ভর ফুটবলও খেলে থাকেন।

ফাউলার কোচ হিসেবে আদর্শ মানেন লিভারপুলের বর্তমান কোচ জুরগেন ক্লপকে। তিনি সেটপিস মুভমেন্টকে জোরালো করানোর জন্য থ্রো ইনের অনুশীলন করাতেন, সেই একই কায়দায় লাল হলুদ কোচও তাই করছেন। সেই কারণে দলে ওরকম একজন কোচও রেখেছেন তিনি। সেই দায়িত্ব নিতে পারেন নেভিল কিংবা ড্যানির মধ্যে কেউ একজন, যিনি লম্বা থ্রো করে বিপক্ষের ওপর চাপ বাড়ানোর চেষ্টা করবেন।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More