অজয়কে লাল কার্ড, ১০ জনের ইস্টবেঙ্গলকে বাঁচালেন দেবজিৎ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ম্যাচের প্রথম ২০ মিনিট এস সি ইস্টবেঙ্গল নিজেদের নামের সুবিচার করতে পারেনি। বরং সেইসময় একের পর এক আক্রমণ করে গিয়েছে চেন্নাইয়ান এফসি। তারা বারবার আক্রমণে এসে লাল হলুদ রক্ষণকে বিব্রত করে গিয়েছে। কিন্তু শেষে এসে খেলার ফল গোলশূন্য। টানা সাত ম্যাচ অপরাজেয় থাকল ইস্টবেঙ্গল।

তার মধ্যেই আবার ইস্টবেঙ্গলে বড় ধাক্কা, অজয় ছেত্রীর লাল কার্ড দেখে বেরিয়ে যাওয়া। তিনি দুইবার হলুদ কার্ড দেখে মাঠের বাইরে চলে গিয়েছেন। সেইসময় খেলার সময় মাত্র ৩০ মিনিট। বাকি ৬০ মিনিট লাল হলুদ দলকে ১০ জনে খেলতে হয়েছে। যার ফলে সমস্যায় পড়তে হয়েছে রবি ফাউলারের দলকে। চেন্নাইয়ের ছাংতে একবার গোল করার মতো অবস্থায় চলে গিয়েছিলেন। তখন দলের হয়ে পতন রোধ করেন গোলরক্ষক দেবজিৎ মজুমদার।

এই আসরে অব্যর্থভাবে সেরা গোলরক্ষক দেবজিৎ, তিনি হয়তো ১৬টি গোল হজম করেছেন, কিন্তু দেখা যাবে কোনও গোলই তাঁর দোষে হয়নি। প্রতিবার দুর্বল রক্ষণের কারণেই তাঁকে অসহায়ের মতো গোল খেতে হয়েছে। না হলে এই আসরে মোট ৪৫ বার তিনি গোলরক্ষা করেছেন, এটিও বিশেষ নজির বলা যেতে পারে। এদিনও তিনি দেওয়ালের মতো বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন বিপক্ষ দলের কাছে। মোট পাঁচটি ক্ষেত্রে নিশ্চিত গোল বাঁচান দেবজিৎ।

বিরতির পরে তাও কিছুটা আক্রমণে গিয়েছে ইস্টবেঙ্গলের স্ট্রাইকাররা। সেইসময় পিলকিনটন, ব্রাইটদের একটু হলেও সপ্রতিভ লেগেছে।

সোমবারও ম্যাচে দেখা গিয়েছে নিজেদের বক্স ছেড়ে এসে গোল দেওয়ার চেষ্টা করেছেন ডিফেন্ডার স্কট নেভিল। গত ম্যাচে তিনি এভাবেই গোল করে দিয়ে দলকে এগিয়ে দিয়েছিলেন। কিন্তু সেদিন গোল খেয়ে গিয়েছিলেন। বিরতির পরেই যত গোল হজম করে ইস্টবেঙ্গল, এদিনও আশঙ্কা ছিল। কিন্তু শেষমেশ হয়নি।

ম্যাচের ৭৫ মিনিটের পরে ইস্টবেঙ্গল পাঁচটি গোল খেয়েছে, এবং বিরতির পরে মোট ১৩টি গোল হজম করেছে। এই নিয়ে কোচ ফাউলার দলের ফুটবলারদের পইপই করে সতর্ক করে দিয়েছিলেন। ১০ জনে হয়ে যাওয়ার পরে এদিন ফাউলারের ছেলেরা তেড়ে আক্রমণে যেতে পারেনি। বরং বিপক্ষ দল অনেকটাই ফাঁকা জমি পেয়ে গিয়েছিল। সেই জন্যই দেখা গিয়েছে বারবার দেবজিৎকে কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হয়েছে।

ইস্টবেঙ্গলের মাঝমাঠও ভাল খেলতে পারেনি সোমবার। তাঁদের খেলার মধ্যে কোনও বোঝাপড়া চোখে পড়েনি। বহুবারই দেখা গিয়েছে ব্রাইট একা দাঁড়িয়ে রয়েছেন পাস না পেয়ে। তিনি গত ম্যাচগুলিতে তাও মাঝমাঠ থেকে আক্রমণে গিয়েছিলেন, সেটিও দেখা যায়নি। অনেকটাই খোলসে ঢুকেছিল লাল হলুদ দল। তারা পয়েন্ট তালিকায় নয়ে রয়েছে ১১ পয়েন্ট অর্জন করে। কোচ বলেছেন এরপরও শেষ চারে যাবে তাঁর দল। সেটি দেখার জন্য বাকি ম্যাচগুলি দলের ছেলেদের কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More