তৃতীয় কিটের জার্সি দেখে ফুঁসছেন সবুজ মেরুন সমর্থকরা, পথে নেমেই প্রতিবাদের হুমকি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বড়সড় প্রতিবাদের রাস্তায় হাঁটতে চলেছেন সবুজ মেরুন সমর্থকরা। তাঁরা এটিকে-মোহনবাগান দলের তৃতীয় কিটের জার্সি নিয়ে রীতিমতো যুদ্ধংদেহী মনোভাব নিতে চলেছেন এটিকে-র মালিক সিইএসসি-র কর্ণধার সঞ্জীব গোয়েঙ্কার বিরুদ্ধে। সমর্থকরা একযোগে ভিক্টোরিয়া হাউসে বিক্ষোভ দেখাবেন বলে ঠিক করেছেন।

ঘটনার কেন্দ্রে সন্দেশ জিঙ্ঘান, রয় কৃষ্ণদের পরণে তৃতীয় কিটের জার্সি, যে জার্সিতে মোহনবাগানের সবুজ মেরুন কোনও চিহ্ন নেই, একটা বুকের কাছে শুধু লোগো রয়েছে, তাতেই বুঝতে হবে এটি মোহনবাগানের জার্সি। না হলে এই জার্সিটি আদতে গত মরসুমে এটিকে দলের অ্যাওয়ে জার্সি ছিল।

সমর্থকদের দাবি, কেন দিনের পর দিন তাঁদের আবেগকে অবহেলা করে এরকম একটি ‘কালো জার্সি’ পরে দলকে খেলানো হচ্ছে। গত এফসি গোয়া ম্যাচেও এই জার্সিতেই খেলেছে হাবাসের দল। এমনকি এর আগেও দলের পঞ্চম ম্যাচে তারা এই জার্সি পরে মাঠে নেমেছিল। সেইসময় প্রতিবাদ দেখানো হয় মোহনবাগানের নানা ফ্যান গ্রুপ থেকে। বলা হয়েছিল, কেন একটি ক্লাবের ১৩১ বছরের গরিমাকে ধ্বংস করে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হল?

সব থেকে বড় বিষয়, মোহনবাগানের ফেসবুক ও টুইটারে যত ফ্যান গ্রুপ রয়েছে, তারা প্রত্যেকেই এই প্রতিবাদে সামিল। মেরিনার্স অন দ্য মুভ- নামে একটি ফ্যান গ্রুপ থেকে ফেসবুকে লেখা হয়েছে পাঁচটি নির্দেশের কথা, যেগুলি সমর্থকদের মানতে অনুরোধ করা হয়েছে।

তারা জানিয়েছে, প্রতিটি সদস্য যেন এটিকে-মোহনবাগান অফিসিয়াল পেজ আনলাইক ও আনফলো করেন। দ্বিতীয়ত, যতদিন না এটিকে নাম উঠছে, ততদিন যেন তাদের কোনও জার্সি কিংবা কোনও দ্রব্য না কেনা হয়। তিন, আমাদের জার্সি নিয়ে দাবি না মানা হলে সমর্থকরা যেন ফ্যান ওয়ালে গিয়ে নিজেদের উপস্থিতি প্রমাণ না করেন। চার, সবাই এটিকে-মোহনবাগান অ্যাপ আন ইনস্টল করুন। শেষ অনুরোধ, যতদিন তাদের ক্লাবের আবেগ ও ঐতিহ্যকে সম্মান না দেওয়া হচ্ছে, ততদিন তাঁরা লড়াই জারি রাখবে। এমনকি পথে নেমে প্রতিবাদও করা হবে সমর্থকদের পক্ষ থেকে।

সমর্থকদের একটা অংশ বলছে, তাদের সঙ্গে কথা বলেই তৃতীয় কিট জার্সির নকশা করা হবে বলে জানানো হয়েছিল। কিন্তু সেটি বোর্ড মিটিংয়ে মানা হয়নি। এই নিয়ে প্রতিবাদ জানাতে সমর্থকদের একাংশ আগামী ১৩ ফেব্রুয়ারি মোহনবাগানের বার্ষিক সভায় প্রতিবাদ জানাবেন ঠিক করে রেখেছেন। এমনকি তার আগে কর্তাদের সঙ্গে কথা বলে নিজেদের পদক্ষেপ জানিয়ে দেওয়া হবে।

এই নিয়ে এটিকে-মোহনবাগানের পক্ষ থেকে কিছু বলা হয়নি। কর্তাদের বরং বক্তব্য, ‘‘এর আগেও এসব শুনেছি, আমরা আমাদের বক্তব্য জানিয়েও দিয়েছিলাম। তারপরও যদি এমন কথা বলা হয়, তা হলে আমরা কী করতে পারি। কারণ সব দেশের নামী ক্লাবগুলি দেখলেই জানা যাবে যে, দলের তৃতীয় কিটের জার্সি নিরপেক্ষই হয়। সেটি নিয়ে অহেতুক বিতর্ক তোলা হচ্ছে।’’

পরিস্থিতি যদিও সুবিধের নয়, কারণ সবুজ মেরুন সমর্থকরা এর শেষ দেখে ছাড়বেন, জানিয়ে দিয়েছেন। তাঁদের বক্তব্যও পরিষ্কার, এই কারণেই যে, এটিকে মোহনবাগানের হোম ও অ্যাওয়ে জার্সি প্রকাশের সময় আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়, কিন্তু সেইসময় অ্যাওয়ে কিট প্রকাশ করা হয়নি। তখনই তা হলে কেন প্রকাশ্যে আনা হল না? এতে এটিকে কর্তাদের যোগসাজশ দেখছেন সমর্থকরা।

এমনকি শেষ গোয়া ম্যাচেই দেখা গিয়েছে খেলা শুরু হতেই মোহনবাগানের একটি গ্রুপ থেকে সাপোটার্স ওয়ালে কালো কাপড়ের ওপর সাদা কালি দিয়ে ক্রস চিহ্ন এঁকে দেওয়া হয়, সেটিও একটি ক্লাবের  সমর্থকদের তরফ থেকে বিশেষ প্রতীকী প্রতিবাদও মনে করা হচ্ছে।

 

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More