কাল চেন্নাইয়ান ম্যাচেও ঘর সামলেই আক্রমণে যাবেন রয় কৃষ্ণরা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: এটিকে-মোহনবাগান দলে নতুন রোগ, এগিয়ে গিয়েও গোল হজম করতে হচ্ছে হাবাসের দলকে। এই নিয়ে চিন্তার শেষ নেই। দলের রক্ষণভাগ যেখানে এত জমাট, সেখানে এমন ভুল হচ্ছে কেন, সেই নিয়ে নিরন্তর গবেষণা চলছে। কারণ ১১ ম্যাচে মাত্র পাঁচটি গোল হজম করতে হয়েছে দলকে। গোলরক্ষক অরিন্দম দলের বড় ভরসা।

এফসি গোয়া ম্যাচে দুরন্ত ফ্রিকিকে এগিয়ে গিয়েও দলের জয় আসেনি। দলের প্র্যাকটিসে ডেড বল সিচুয়েশন থেকে কিভাবে ফায়দা তোলা যাবে, সেই নিয়েও তালিম চলেছে। এমনকি দলের ফুটবলারদের মধ্যে কেউ কেউ বলছেনও, ‘‘আমাদের কোচের ছক হল গোল খাওবা কোনওমতেই চলবে না। কোচ জানিয়ে দিয়েছেন, আগে ঘর সামলাও, তারপর আক্রমণে যাও।’’

গত বছর আইএসএলে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সরণীতে এটিকে দলের পয়েন্ট ছিল ১১ ম্যাচে ২১ পয়েন্ট। সেই একই প্রেক্ষাপট এবারও হাজির। বৃহস্পতিবার চেন্নাইয়ান এফসি ম্যাচ খেলতে নামার আগে ভার্চুয়াল প্রেস কনফারেন্সে কোচ আন্তোনিও লোপেজ হাবাস জানিয়েছেন, ‘‘আমার কাছে ভাল খেলার থেকে প্রাসঙ্গিক বিষয় হল জয়, সেটি দেখতেই সমর্থকরা অপেক্ষা করে থাকেন। ভাল গোল হলে আনন্দ হওয়া স্বাভাবিক বিষয়, কিন্তু সেই গোল দাম পায় যদি দল জেতে, তা হলেই, তাই আমি জয়ের জন্যই মরিয়া থাকি।’’

গোয়ার বিরুদ্ধে ড্রয়ের আগে মুম্বই সিটির কাছে হারতে হয়েছিল এটিকে মোহনবাগানকে। আগের দুটো ম্যাচের স্মৃতি মন থেকে মুছে ফেলে চেন্নাইয়িনের বিরুদ্ধে নামতে চাইছেন দলের সিনিয়র তারকা গার্সিয়া। তিনি বলেছেন, ‘‘আমরা যে দুটি দলের সঙ্গে পাঁচ পয়েন্ট নষ্ট করেছি, তারা এই প্রতিযোগিতায় সেরা দুটি ক্লাব। তবুও আমরা কিন্তু লিগ টেবিলের দুই নম্বরে। আগের ম্যাচগুলোয় কী হয়েছে, তা নিয়ে ভাবতে রাজি নই। চেন্নাইয়ান ম্যাচে জয় ছাড়া কিছুই ভাবছি না।’’

গোয়ার বিরুদ্ধে এগিয়ে থেকেও পুরো তিন পয়েন্ট ঘরে না আসায় আফশোস রয়েছে মিডফিল্ডার প্রবীর দাশের। তিনি পরিষ্কার জানিয়েছেন, গোয়া ম্যাচে আমরা এগিয়ে গিয়েও জয় তুলে আনতে পারিনি। সেই নিয়ে একটা হতাশা থাকলেও সেটি নিয়ে ভাবতে রাজি নই।’’ তিনি আরও বলেন, ‘‘দলের ড্রেসিংরুমের পরিবেশ বেশ ফুরফুরে, তাই গোয়া ম্যাচের ব্যর্থতা কাটিয়ে ফের জয়ের পথে ফিরতে চাই আমরা।’’

চেন্নাইয়ান এফসির বিরুদ্ধে প্রথম সাক্ষাতে ড্র করেছিলেন প্রবীররা। এবার ম্যাচটা জিততে চাইছেন তাঁরা। হাবাসের ছক নিয়ে সমালোচনাও শুরু হয়ে গিয়েছে। দলের মিডিও শুভাশিস বোস তাঁর কোচের স্ট্র্যাটেজি প্রসঙ্গে বলেছেন, ‘‘আমাদের কোচের কৌশল হল ম্যাচ ধরে ধরে এগনো। এখন আমরা শুধু চেন্নাইয়ান ম্যাচ জেতার কথাই ভাবছি। এখনও নয়টি ম্যাচ বাকি। আমাদের মতো অন্য দলেরও আট বা নয়টি ম্যাচ বাকি রয়েছে। একটা বা দুটি ম্যাচ লিগ টেবিলের পরিস্থিতি বদলে দিতে পারে।’’

অতএব, বোঝাই যাচ্ছে মরিয়া হয়েই জয়ের পথে ফিরতে চাইছেন রয় কৃষ্ণ, ডেভিড উইলিয়ামস, মনবীর সিংরা।
ফেসবুক ক্যাপশন : দলের রক্ষণভাগ যেখানে এত জমাট, সেখানে এমন ভুল হচ্ছে কেন, সেই নিয়ে নিরন্তর গবেষণা চলছে হাবাসের দলে।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More