শহরে আইএসএল উন্মাদনা, ইস্টবেঙ্গলের চুলোভার চোট গুরুতর

 

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আইপিএল শেষ হতেই দামামা বাজলে আইএসএলের। এতদিন আইএসএল নিয়ে শহরের ফুটবল প্রেমীদের কোনও উন্মাদনা ছিল না। কিন্তু এবার কলকাতার দুই প্রধান দল আইএসএলে যোগ দেওয়ায় সাধারণভাবেই মানুষের উৎসাহ বেড়েছে।

২০ নভেম্বর থেকে গোয়ার বুকে আইএসএল দেশের একনম্বর লিগ শুরু হবে। প্রথমদিনই নামছে এটিকে-মোহনবাগান, তাদের প্রতিপক্ষ গত মরসুমে সবুজ মেরুনের হেডস্যার ছিলেন যিনি, সেই কিবু ভিকুনার কেরালা ব্লাস্টার্স। গোয়াতে টুর্নামেন্ট হলেও কলকাতা বসে থাকে কী করে!

কথাতেই রয়েছে, ফুটবলের মক্কা কলকাতা। তারওপর দলের দুটি প্রিয় দল যেহেতু খেতাব যুদ্ধে নামছে, সেই কারণে শহরের আনাচে কানাচে মোহনবাগান ও ইস্টবেঙ্গলের ফুটবলারদের নিয়ে কাটআউট ও ব্যানার দিয়ে সাজানোর পালা চলছে। যুবভারতী স্টেডিয়ামের পাশেই যেমন সেজে উঠেছে এমনই এক কাটআউট।

তার মধ্যেই হাতে বাকি আর মাত্র কয়েকদিন। দলগুলি শেষ প্রস্তুতিতে সময় দিচ্ছে। মোহনবাগানের প্রথম প্র্যাকটিস ম্যাচ বাতিল ঘোষিত হয়েছে। প্রতিপক্ষ ছিল গোয়া এফসি। ইস্টবেঙ্গল একটি প্র্যাকটিস ম্যাচ খেলে ফেলেছে। গত মঙ্গলবার সেই অনুশীলন ম্যাচ খেলতে গিয়েই চোট পেয়েছেন ইস্টবেঙ্গল রক্ষণের সেরা প্রতিভা লালরাম চুলোভা।

কেরালা ব্লাস্টার্সের বিরুদ্ধে হাঁটুতে চোট পেয়েছেন এই মিজো ফুটবলার। মনে করা হচ্ছে চোট বেশ গুরুতর। এমনকি চোটের কারণে চুলোভার আসন্ন আইএসএল মরশুমে নাও খেলা হতে পারে। উল্লেখ্য, মঙ্গলবার প্রস্তুতি ম্যাচের পর বুধবার প্র্যাকটিসে ছুটি দিয়েছিলেন কোচ রবি ফাওলার। মূলত জিমেই সময় কাটান ফুটবলাররা। কিন্তু চুলোভার চোট বড় আকার ধারণ করায় শিবিরে খানিক উদ্বেগ ছড়ায়। জানা গিয়েছে, চুলোভার চোট পরীক্ষা করে আইএসএলে তাঁর ভবিষ্যত নিয়ে শীঘ্রই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে টিম ম্যানেজমেন্ট।

২০১৮-১৯ মরশুমে চুলোভা ভাল ফর্মে ছিলেন। তিনি শেষ মরসুম খেলেন মোহনবাগানে। একান্তই যদি চুলোভাকে পুরো আইএসএলে না পায় দল, সেক্ষেত্রে রিনো অ্যান্টোকে গোয়া পাঠানো হবে, এমনই খবর মিলেছে ক্লাব সূত্রে। চুলোভাকে দুই বছরের চুক্তিতে এবার সই করানো হয়েছিল। তাঁকে না পাওয়া গেলে কোচ ফাউলারের চিন্তা থাকবেই।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More