সৌরভের বদলে আইসিসি-তে বোর্ডের প্রতিনিধি হতে পারেন জয় শাহ, ফের জল্পনা থাকছে মহারাজকে নিয়ে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের গত বার্ষিক সভায় ঠিক হয়েছিল আইসিসি-তে বিসিসিআই-র প্রতিনিধি হবেন প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। কিন্তু রবিবার সন্ধ্যের পর থেকে চিত্রনাট্য বদল হতে থাকে। সংবাদসংস্থা এএনআই-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বোর্ডের এক নামী পদাধিকারী জানিয়েছেন, আইসিসি-তে আমাদের প্রতিনিধি হিসেবে যাবে সচিব জয় শাহ।

আচমকা সৌরভের নাম বদল হল কেন? তার দুটি কারণ জানা গিয়েছে। বোর্ডের তরফ থেকে সরকারীভাবে বলা হচ্ছে, সৌরভ যেহেতু সদ্য হার্ট অ্যাটাক থেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। তাঁকে অত ভারী কাজের দায়িত্ব দেওয়া যাবে না। সেই জন্য আইসিসি-র আগামী সভায় সৌরভের বদলে জয় যাবেন বলে ঠিক হয়েছে।

এমনিতেই সৌরভকে ফের দুই সপ্তাহ পরে হাসপাতালে চেকআপের জন্য যেতে হবে। এমনই বলে দেওয়া হয়েছিল হাসপাতাল থেকে। সেই কারণে বোর্ড প্রেসিডেন্ট হিসেবে আইসিসি-র বোর্ড মিটিংয়ে তিনি যেতে পারবেন না, এটাই স্বাভাবিক বিষয়। কেননা আইসিসি বোর্ড মিটিংয়ে বোর্ড থেকে প্রেসিডেন্ট, সচিব কিংবা কোষাধ্যক্ষের নাম পাঠানো যেতে পারে, এমনই নিয়ম রয়েছে।

যদিও বোর্ড সূত্রে এই খবর প্রকাশ পেতেই সৌরভকে ঘিরে আবারও রাজনৈতিক যোগদানের বিষয়ে জল্পনাও শুরু হয়েছে। বলা হচ্ছে, সৌরভ যদি কোনও রাজনৈতিক দলে যোগ দেন, সেক্ষেত্রে আইসিসি-তেও তিনি যেতে পারবেন না। কারণ রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় গেলেই ক্রীড়া সংস্থার পদ থেকে সরে যেতে হবে, এমনই লোধা আইনে বলা আছে।

আইসিসি-তে বোর্ডের প্রতিনিধি হয়ে যেতে পারেন জয়, এই খবরটিতে টুইট করে জল্পনা আরও বাড়িয়েছেন দেশের নামী ক্রিকেট সাংবাদিক প্রদীপ ম্যাগাজিন। তিনি একটি টুইটে লিখেছেন, ‘‘এই খবরের পরিপ্রেক্ষিতে তা হলে কী আমরা ধরে নেব সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় বিজেপি-তেই যোগ দেবেন?’’

এই নিয়ে ফের আলোচনাও শুরু হল। কেননা সৌরভ রাজনীতিতে যোগ করা মানে তিনি বোর্ডেও থাকতে পারবেন না। এমনিতেই তাঁর ছয় বছর মেয়াদ হয়েই গিয়েছে, তাঁকে তিনবছরের জন্য কুলিং অফে যেতে হবেই। কিন্তু আদালত এখনও এই বিষয়ে কোনও নির্দেশ দেয়নি। সেই জন্যই বোর্ডের ৮৯তম বার্ষিক সভায় তাঁর নামই প্রেসিডেন্ট হিসেবে ফের মনোনিত হয়েছে।

এদিকে, ২০২১ সালে টি ২০ বিশ্বকাপ ও ২০২৩ সালে ওয়ান ডে বিশ্বকাপের জন্য সরকার থেকে বিপুল পরিমান কর চাওয়া হয়েছে বোর্ডের থেকে। এই বিষয়ে সচিব ও কোষাধ্যক্ষ কথা বলেছেন সরকারি আধিকারিকদের সঙ্গে। কিন্তু কর মুকুব হবে কিনা, সেটিও ঠিক হয়নি।

 

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More