বদলে গিয়েছে সেই কিশোরভারতী, নবকলেবর মাঠের উদ্বোধন আগামী মাসেই

দ্য ওয়াল ব্যুরো: যাদবপুর সন্তোষপুরের কিশোরভারতী ক্রীড়াঙ্গন মানে বহু নস্টালজিয়া। একটা সময় জাতীয় ফুটবল লিগের ম্যাচ হয়েছে। কলকাতার তিন প্রধান খেলে গিয়েছে ওই মাঠে। বহু তারকার জন্ম দেখেছে ওই মাঠ।

অমল দত্ত সেইসময় টালিগঞ্জ অগ্রগামীর কোচ, সেইসময় কিশোরভারতী ছিল টালিগঞ্জের হোম গ্রাউন্ড। তখন টালি মানেই ছিল ‘জায়ান্ট কিলার’। ওই মাঠের ঘাসগুলিতে দুই প্রধানের ফুটবলারদের চাপা দীর্ঘশ্বাস রয়েছে। কত ম্যাচে পয়েন্ট হারিয়েছে মোহনবাগান, ইস্টবেঙ্গল, তার ইয়ত্তা নেই।

ময়দানের তারকা কোচ প্রয়াত অমল দত্ত ওই মাঠের চৌহদ্দিতে তাঁর সাধের মারুতি গাড়িটা রেখে বলতেন, ‘‘ওহে ছোকরার দল, গাড়িতে হাত দিবি না, গরীর কোচের গাড়ি!’’ হাস্যরোল শুরু হয়ে যেত ওই কথা শুনে। ওই মাঠে বহু বিতর্কও হয়েছে, মেঠো ঝামেলা, রেফারি নিয়ে তর্কাতর্কি, হাতাহাতি পর্যন্ত হয়েছে।

সেই খেলা, সেই পরিবেশ দিনদিন বিলীন হতে থাকে। তারপর কিশোরভারতীতে বড় বড় ঘাস হয়ে খেলার অযোগ্য হয়ে যায়। তখন কিশোরভারতীতে বিয়ে বাড়ি ভাড়া দেওয়া হতো। খেলার চল ছিল না একেবারেই, সব উবে গিয়েছিল।

আবারও ওই মাঠে ফিরছে ফুটবল, বড় বড় টুর্নামেন্ট। আবারও কিশোরভারতী হয়ে উঠছে খেলার মূল অঙ্গন। ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথম কিংবা দ্বিতীয় সপ্তাহে রাজ্য সরকার নবেকলেবর মাঠের সাড়ম্বরে উদ্বোধন করবেন। বুধবার এমনই ইঙ্গিত দিয়েছেন ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস। তিনি জানিয়েছেন, ‘‘কিশোরভারতী বদলে গিয়েছে, ওটা আমাদের মিনি যুবভারতী হবে এবার থেকে।’’

ঢেলে সাজানো হয়েছে মাঠচত্বর। এই স্টেডিয়ামের সংস্কারের পরে এই স্টেডিয়াম এখন ঝাঁ চকচকে। বাংলার কিংবদন্তি ফুটবলারদের ছবি দিয়ে সাজানো। মখমলের মতো মাঠ, ফ্লাড লাইট, আর অত্যাধুনিক ড্রেসিংরুম, মিডিয়া সেন্টার ও প্রেস বক্স রয়েছে ক্লাব হাউসে।

পাশাপাশি স্টেডিয়ামের দ্বিতীয় তলে বাংলার ঐতিহ্য রাখা হয়েছে। সেখানে শোভা পাচ্ছে পুরুলিয়ার ছৌ নাচ, তাঁত শিল্প, মৃৎশিল্পের নানা বিন্যাস।

ইতিমধ্যেই স্টেডিয়াম কর্তৃপক্ষ ফুটবল ফেডারেশনকে চিঠি দিয়েছে আই লিগ ও আইএসএলের ম্যাচ যাতে এই মাঠে করা যায়। যাতাযাত ব্যবস্থাও ভাল, কারণ বাস, মেট্রো, ট্রেনের ব্যবস্থা রয়েছে। এমনকি বাংলার দলগুলির প্র্যাকটিস গ্রাউন্ড্ হতে পারে বদলে যাওয়া কিশোরভারতী। ওই মাঠে ফের খেলা হবে, সেটি ভেবেই খুশি বাংলার ফুটবলপ্রেমী মানুষ।

 

 

Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More