বিরতির পরে মাঠে নেমে জোড়া গোল মেসির, বড় জয় বার্সেলোনার

 

দ্য ওয়াল ব্যুরো: শেষ চারটি ম্যাচের ফল ছিল বার্সেলোনার পক্ষে দুটি হার ও দুটি ড্র। যার ফলে এই হেভিওয়েট দলটি তালিকায় চলে গিয়েছিল দ্বাদশ স্থানে। এরকম একটি অবস্থা থেকে দলকে ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য প্রয়োজন ছিল বড় একটা জয়ের।

সেটাই ঘটল লিওনেল মেসির বার্সার ক্ষেত্রে। মেসির জোড়া গোলের সুবাদে ৫-২ ব্যবধানে রিয়াল বেটিসের বিপক্ষে জিতলেও, বার্সার গোলের সংখ্যা অন্তত হাফ ডজন হতেই পারত। ম্যাচের ৩৩ মিনিটে গোলের সহজতম সুযোগ অর্থাৎ পেনাল্টি পেয়েও সেটি কাজে লাগাতে পারেননি গ্রিজম্যান। ডানদিকে ঝাঁপিয়ে গ্রিজম্যানের শট প্রতিহত করেন বার্সার প্রাক্তন গোলরক্ষক ক্লদিও ব্র্যাভো।

ঘরের মাঠে রাতের ম্যাচে বার্সেলোনা প্রথমার্ধে মাত্র একটি গোল করতে পেরেছিল। বারবার আক্রমণ করেও শেষ কাজটি সারতে পারেনি বার্সা। দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে নামেন অধিনায়ক লিওনেল মেসি এবং বদলে যায় দৃশ্যপট। শেষের ৪৫ মিনিটেই বার্সেলোনা করেছে ৪টি গোল।

প্রথমার্ধের পুরো সময় রিজার্ভ বেঞ্চে থাকলেও, দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে নেমে দুই গোল করেছেন মেসি। অন্য তিনটি গোল করেছেন দেম্বেলে, গ্রিজম্যান ও পেদ্রো। লা লিগায় এই নিয়ে পঞ্চমবার রিজার্ভ বেঞ্চ থেকে মাঠে নেমে জোড়া গোল করলেন বার্সা রাজপুত্র। ২০১৩ সালে রিয়াল বেটিসের বিপক্ষেই বেঞ্চ থেকে মাঠে এসে জোড়া গোল করেছিলেন মেসি।

ম্যাচে প্রথম গোল করলেও বিরতির আগে এগিয়ে থাকা হয়নি বার্সেলোনার। কেননা প্রথমার্ধের ইনজরি টাইমে গোল শোধ করে দেন বেটিসের ফরোয়ার্ড অ্যান্তনিও সানাব্রিয়া। ফলে ১-১ গোলে প্রথমার্ধের খেলা শেষ হয়েছে। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই তরুণ আনসু ফাতিকে বেঞ্চে পাঠিয়ে দলের সবচেয়ে বড় তারকা লিওনেল মেসিকে মাঠে নামান বার্সা কোচ রোনাল্ড কোম্যান।

নিজের প্রথম ও দলের তৃতীয় গোল পেতে মেসিকে অপেক্ষা করতে হয় ৬১ মিনিট পর্যন্ত। তখন ম্যাচের দ্বিতীয় পেনাল্টি পায় বার্সেলোনা। ডি-বক্সের মধ্যে হ্যান্ডবল করেছিলেন আইসা মান্দি। রেফারির সন্দেহ থাকায় সাহায্য নেন ভিএআরের। সেখান থেকেই নিশ্চিত হয় পেনাল্টির সিদ্ধান্ত। দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়তে হয় মান্দিকে।

এবার আর পেনাল্টি নিতে গ্রিজম্যানকে ডাকেনি বার্সেলোনা। মেসি মাঠে থাকায় তিনিই নেন এবারের শট, সহজেই পরাস্ত করেন ব্রাভোকে। ফলে ৩-১ ব্যবধানে এগিয়ে যায় বার্সা। এর ১২ মিনিট পর ব্যবধান কমান বেটিস ফরোয়ার্ড লরেঞ্জ গার্সিয়া। ৮২ মিনিটের মাথায় নিজের দ্বিতীয় গোল করে ব্যবধান আবারও বাড়িয়ে দেন মেসি। চলতি মরসুমে পেনাল্টি ছাড়া এটিই মেসির প্রথম গোল। ম্যাচের একদম শেষদিকে গোল করেন পেদ্রো, তাঁর গোলেই পাঁচ গোল করে কাতালাররা।

এই জয়ের সুবাদে পয়েন্ট টেবিলের চার ধাপ এগিয়েছে বার্সেলোনা। সাতটি ম্যাচে ৩ জয়, ২টি ড্র নিয়ে ১১ পয়েন্ট নিয়ে বার্সেলোনার আটে রয়েছে। ম্যাচ হারলেও নয় ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে বার্সার ঠিক ওপরে বেটিস। এবং ৮ ম্যাচ থেকে ১৭ পয়েন্ট সংগ্রহ করে রিয়াল মাদ্রিদ শীর্ষে অবস্থান করছে।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More