অভিনব প্রতিবাদ ফুটবলে, ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে খেলার মধ্যেই মাঠে প্রবেশ ম্যান ইউ-র সমর্থকদের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: এরকম প্রতিবাদ দেখেনি ফুটবল বিশ্ব।

ক্লাবের অন্দরে সমস্যা, তাতে দলের পারফরম্যান্সে প্রভাব পড়ছে। সদস্য-সমর্থকদের মধ্যে একটা অজানা আশঙ্কা দেখা দিচ্ছে। এই কারণে ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড ও লিভারপুল খেলার মধ্যেই দুশো সমর্থক মাঠে প্রবেশ করে গেলেন। এটি একেবারেই নজিরবিহীন প্রতিবাদ।

ক্লাবের মালিক গ্লেজার্স পরিবারের বিপক্ষে ‘গ্লেজার্স আউট’ স্লোগানে বিক্ষোভ করেন তারা। এসময় বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড হাতে নিয়ে, আতশবাজি জ্বালানো হয় মাঠের মধ্যে। পরে পুলিশ তাদের সরিয়ে দেয়। কিন্তু ততক্ষণে ম্যাচ শুরুর সময়ের প্রায় ১ ঘণ্টা দেরি হয়ে যায়।

যে কারণে প্রিমিয়ার লিগ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে ম্যাচটি আপাতত স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ম্যান ইউনাইটেড। লিগ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে পুনরায় আলোচনা করে ম্যাচের নতুন সূচি ঠিক করা হবে বলে বিবৃতিতে জানানো হয়েছে।

ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের মালিক জোয়েল ও আভরাম গ্লেজারের সঙ্গে সমর্থকদের অনেকদিন ধরেই মতান্তর চলছে। সেটির কারণ হতে পারে সুপার লিগে অংশ নেওয়া নিয়েও।

ম্যাচ শুরুর কয়েক ঘণ্টা আগে হঠাৎই ম্যান ইউনাইটেডের ঘরের মাঠ ওল্ড ট্র্যাফোর্ড স্টেডিয়ামে ঢুকে পড়েন অগণিত ম্যান ইউনাইটেড ভক্ত। কয়েকজনের হাতে ব্যানার ছিল, ‘‘জোয়েল ও আভরাম শুনে নাও, এই ক্লাব তোমাদের নয় আমাদের। কেউ এ ক্লাব কেড়ে নিতে পারবে না।’’

স্টেডিয়ামে নির্দেশিকা ছিল করোনার মধ্যে যাতে কেউ বেশি ভিড় না করেন, সেটি শোনেননি সমর্থকরা। যত সময় এগোতে থাকে ম্যান ইউনাইটেড ভক্তরা আরও বেশি আগ্রাসী মেজাজে প্রতিবাদ করতে থাকেন। মাঠ থেকে বারবার বেরোতে বলা হলেও কেউ শোনেননি।

ম্যান ইউনাইটেডের টিম হোটেল লাউরির সামনেও জমায়েত করেন ক্ষুব্ধ সমর্থকরা। যাঁরা ম্যান ইউনাইটেডের টিমবাসও আটকে দেন। ফুটবলারদের দিকে ইঙ্গিত করে শুধু সবাই বলতে থাকেন, ‘‘তোমরাও প্রতিবাদ করো। ক্লাবটাকে বাঁচাও।’’

এদিকে লিভারপুল-ম্যান ইউ ম্যাচটি যথাসময়ে ম্যাচটি হলে ও লিভারপুল জিতে গেলে বাইরে বসেই এবারের ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে চ্যাম্পিয়ন হয়ে যেত ম্যান সিটি। কিন্তু ম্যাচটি স্থগিত হয়ে যাওয়ায় সেই সুযোগ থাকল না ম্যান সিটির। তারা আগামী শনিবার চেলসির বিপক্ষে জিতলেই নিশ্চিত হবে শিরোপা।

এখনও পর্যন্ত খেলা ৩৪ ম্যাচে ৮০ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে আছে পেপ গুয়ার্দিয়লার ম্যান সিটি। তাদের চেয়ে এক ম্যাচ কম খেলে ৬৭ পয়েন্ট রয়েছে ম্যান ইউর। লিভারপুলের ঝুলিতে রয়েছে ৫৪ পয়েন্ট, অবস্থান সাতে।

 

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More