শেষ ম্যাচেও ফুটবলারদের ঘাড়ে দোষ চাপিয়ে দেশে ফিরলেন ইস্টবেঙ্গলের সাহেব কোচ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: শুরু থেকেই তাঁর কোচিং নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। পরপর পাঁচটি ম্যাচে হারের পরে রব উঠেছিল, গো ব্যাক রবি ফাউলার। যেহেতু তিনি বড় ফুটবলার, এবং ইস্টবেঙ্গলের ইনভেস্টর শ্রী সিমেন্ট কর্তৃপক্ষ তাঁকে কোচ করে নিয়ে এসেছিল, তাই সমর্থকদের দাবি গোয়া পর্যন্ত পৌঁছায়নি।

সম্প্রতি ইস্টবেঙ্গলের নামী প্রাক্তন সমরেশ (পিন্টু) চৌধুরী, সুভাষ ভৌমিকরা জানিয়েছিলেন, ফাউলার যদি কলকাতায় তাঁর কোচিং ইনিংস শুরু করতেন, তা হলে তাঁকে পাঁচ ম্যাচ পরেই দেশে ফেরার বিমান ধরতে হতো। যেহেতু গোয়ায় এবার আইএসএল হয়েছে, সেই কারণে তিনি চারমাস বেতন নিয়ে কোচিং করাতে পেরেছেন।

নিজের ইচ্ছেমতো কোচিং স্টাফ আনা, ফুটবলার নিয়োগের পরে তিনি ব্যর্থ হতেই একবার রেফারির দিকে আঙুল তুলেছেন। আবার ফুটবলারদের ঘাড়ে দোষ চাপিয়েছেন অবলীলায়। এমনকি শেষ ম্যাচে লিগের লাস্ট বয় ওড়িশা এফসির কাছে ছয় গোল হজম করে হারের পরেও ফুটবলারদের ব্যর্থতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

এমনিতেই তিনি দোষ চাপাতে পারলে বেঁচে যান। ফাউলার নিয়েও বহু ফুটবলার নানা অভিযোগ করেছেন। তাঁর বিরুদ্ধে বড় অভিযোগ, তিনি বর্ণবিদ্বেষী মন্তব্য করেন মাঝেমধ্যেই। শেষ ম্যাচ হেরে ফাউলার জানিয়েছেন, ‘‘আমার মনে হয় আমাদের রক্ষণ খুবই বাজে খেলেছে। মনঃসংযোগের অভাব ছিল। আমাদের এই হারকে মেনে নিতেই হবে। এই লিগে কোনও দলই অপরাজেয় নয়। এটা বারবার প্রমাণ হয়েছে। পাঁচ ম্যাচ আগেও আমরা শেষ চারের লড়াইয়ে ছিলাম। কিন্তু আমাদের মনঃসংযোগের সমস্যা ছিল।’’

সাহেব কোচ আরও বলেছেন, ‘‘প্রথমার্ধে আমরা এক গোলে এগিয়ে ছিলাম। দ্বিতীয়ার্ধে আমরা দুই গোল খেয়ে যাই। সেটাই আমাদের পেছনের দিকে ঠেলে দেয়। এটা মানা খুব কঠিন। ওরা যখনই আক্রমণ করতে উঠছিল মনে হচ্ছিল গোল খেয়ে যাব। বিরতির পরে বহু ম্যাচে আমরা নিজেদের নিয়ন্ত্রণে ম্যাচ রাখতে পারিনি। এটাই পার্থক্য গড়ে দিয়েছে।’’

তিনি যে ম্যাচের কৌশল করতে ব্যর্থ, সেই কথা একবারের জন্যও বলেননি কোচ ফাউলার। তাঁর মন্তব্য, সঠিক ফুটবলার না থাকলে কৌশল করে লাভ নেই। তাঁর আনা বিদেশীদের মধ্যে কেউ কেউ একেবারে অযোগ্য, সেটি নিয়েও তিনি কিছু বলেননি। বরং জানিয়েছেন, ভারতীয়দের আত্মবিশ্বাসের অভাব ছিল, সেটিই ম্যাচে ফারাক গড়ে দিয়েছে বারবার।

অনুশীলনে বেশি সময় পায়নি দল, তা বারবারই অজুহাত হিসেবে সামনে রেখেছেন। এমনকি ফাউলার এও বলেছেন, দলের ফুটবলারদের ফিটনেস স্তর ভাল ছিল না। তিনি চার মাস হাতে সময় পেয়ে কী করেছেন, তার ব্যাখ্যা দিতে চাননি ব্রিটিশ কোচ।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More