মেসি, নেইমারকে টপকে মাঠের বাইরে ২০ কোটিতে এগিয়ে রোনাল্ডো

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বিশ্ব ফুটবলে তিন মহাতারকাকে নিয়ে সবসময় আলোচনা। ট্র্যাপিজের দড়ি টানাটানির মতো চলে তাঁদের নিয়ে প্রতিযোগিতা। কে কাকে বেশি টেক্কা দিলেন, এই নিয়েই হয় গুঞ্জন।

মাঠের লড়াইয়ে কে আগে, কে পরে কিংবা কে সেরা, মেসি না রোনাল্ডো- এসব নিয়ে অনেক বিতর্ক হতে পারে। কেউ বলবেন সেরা মেসি, কেউ বলবেন সেরা পর্তুগিজ মহাতারকা। এই বিতর্ক চিরন্তন। শেষ হবে না কখনই।

কিন্তু মাঠের বাইরে সোশ্যাল মিডিয়ার লড়াইয়ে একচ্ছত্র অধিপতি সিআর সেভেন। সেখানে পর্তুগিজ এই উইঙ্গারের ধারে-কাছেও নেই লিওনেল মেসি কিংবা নেইমার ডি সিলভা জুনিয়র।

ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর সঙ্গে দ্বিতীয় স্থানে থাকা লিওনেল মেসির ব্যবধান শুনলেও চোখ কপালে উঠবে। ২০০ মিলিয়ন তথা ২০ কোটি বেশি।

সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনটি ফ্ল্যাটফর্ম, ফেসবুক, টুইটার এবং ইনস্টাগ্রাম মিলে হিসেব করলে দেখা যায়, এ সাম্রাজ্যের মহারাজা অব্যর্থভাবেই রোনাল্ডো। এই তিন ফরম্যাটে জুভেন্টাস তারকার ফলোয়ার সর্বমোট ৪৬৫ মিলিয়ন তথা ৪৬.৫ কোটি।

ফেসবুকে রোনাল্ডোর ফলোয়ার ১২৪ মিলিয়ন (১২.৪ কোটি)। টুইটারে ফলোয়ার ৯০ মিলিয়ন (৯ কোটি) এবং ইনস্টাগ্রামে ফলোয়ার ২৫১ মিলিয়ন তথা ২৫.১ কোটি। সব মিলিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় রোনাল্ডোর ফলোয়ার ৪৬৫ মিলিয়ন (৬৪.৫ কোটি)। যা একটি মহারেকর্ডও।

লিওনেল মেসির সর্বমোট ফলোয়ার হচ্ছে ২৬৫ মিলিয়ন তথা ২৬.৫ কোটি। মজার বিষয় হচ্ছে, টুইটারে কোনও অ্যাকাউন্টই নেই মেসির। ফেসবুকে তাঁর ফলোয়ার ৯০ মিলিয়ন তথা ৯ কোটি। ১৭৫ মিলিয়ন (১৭.৫ কোটি) হচ্ছেন ইনস্টাগ্রামে ফলোয়ার। নেইমারের মোট ফলোয়ার হচ্ছে ২৫৪ মিলিয়ন তথা ২৫.৪ কোটি।

সব থেকে বড় বিষয়, মহাতারকারা যে সোশ্যাল সাইটে তাঁদের ছবি পোস্ট করেন, তা থেকে তাঁদের আয়ও হয়। সেই আয়ের দিক থেকেও রোনাল্ডো বাকি দুই মহাতারকাকে পিছনে ফেলে দিয়েছেন। কারণ রোনাল্ডো ছবি দিলেই সেটি হিট করে বেশি।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More