চোটের কারণে নেই সন্দেশ, খালিদ জামিলের দলের বিপক্ষে কাল হাবাসের ভরসা সেই কৃষ্ণই

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আইএসএলের ফাইনালে যাওয়ার লড়াইয়ে শনিবার নামছে এটিকে-মোহনবাগান। সামনে খালিদ জামিলের নর্থ ইস্ট ইউনাইটেড। এই ভারতীয় কোচের তালিমে পুরো বদলে গিয়েছে জন আব্রাহামের দল। একটা সময় ইস্টবেঙ্গলের কোচ থাকার সময় খালিদ জামিলের বিরুদ্ধে সবুজ মেরুন কর্তাদের অভিযোগ ছিল, তিনি নাকি ম্যাচে নামার আগে নানা ‘তুকতাক’ করেন। এই নিয়ে বিস্তর কথাও হয়।

নিশ্চয়ই সেই অভিযোগ ভোলেননি খালিদ, তিনি এই ম্যাচ জিতলে কী বলতে পারেন, সেই নিয়ে আগ্রহ থাকা স্বাভাবিক বিষয়। খালিদের স্পর্শে দলের মধ্যে আত্মবিশ্বাস তৈরি হয়েছে, যা বিপক্ষ দলের কাছে চিন্তার কারণ হতে পারে।

আদৌ কি রয় কৃষ্ণদের কোচ আন্তোনিও লোপেজ হাবাস চিন্তিত? সেই নিয়ে কথা বলতে গিয়ে এটিকে-মোহনবাগান কোচের ব্যাখ্যা, ‘‘নর্থ ইস্ট ভাল দল সন্দেহ নেই, আর কোচ হিসেবে খালিদও বুদ্ধিমান, সুতরাং ভালই লড়াই হবে ম্যাচে।’’

চোটের কারণে পাঁজরে চোটের জন্য নর্থ-ইস্ট ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে খেলতে পারবেন না সন্দেশ জিঙ্ঘান। সেই কারণে দলের ডিফেন্স সাজাতে ভাবনায় রয়েছেন স্প্যানিশ কোচ। গত ম্যাচে হারের কারণে এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগে খেলার যোগ্যতা হারিয়েছে দল। সেই নিয়েও একটা হতাশা রয়েছে হাবাসের। তাঁর মতে, “কয়েকটা হারের জন্য জীবন থেমে যায় না। মুম্বইয়ের কাছে হারলেও ছেলেদের মধ্যে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা আছে। আর তাছাড়া সন্দেশ না থাকলেও বাকিরা তো আছে। তাদের নিয়েই লড়তে হবে। জিতে নিজেদের যোগ্যতা ফের প্রমাণ করাই আমাদের কাছে চ্যালেঞ্জ।’’

সন্দেশের বদলে খেলতে পারেন শুভাশিস বসু। কোচ দল সাজাতে পারেন তিন ডিফেন্ডারকে রেখেই। তিরি, শুভাশিস ও প্রীতম থাকতে পারেন, একটু সামনের দিকে খেলতে পারেন কার্ল ম্যাকহুগ। শুধু সন্দেশের অনুপস্থিতি নয়, হাবাসের দল সেটপিস থেকেও একনাগাড়ে গোল হজম করেছে। এখনও ১৫টি গোলের মধ্যে ৭ গোল হজম করতে হয়েছে সেটপিস থেকে। এটিকে-মোহনবাগানের হেডস্যার জানিয়ে রেখেছেন, ‘‘আমাদের দলে অনেক ইতিবাচক দিক রয়েছে, সেগুলি নিয়ে কেউ কিছু বলে না, একটা সমস্যা থাকলেই সেটিকে বড় করে দেখানো হয়।’’

বিপক্ষ নর্থ ইস্ট দলের অস্ত্র বলতে রয়েছেন ভিপি সুহের, মাচাডো, গ্যালাগো, ব্রাউনের মতো ফুটবলাররা। কোচ খালিদও জানিয়ে রেখেছেন, ‘‘ছেলেরা দারুণ লড়াই করে এতদূর এসেছে, তাই এই চেষ্টা বিফলে যাবে না। আবার এও ঠিক, এটিকে-মোহনবাগান দল খুবই ভাল, ওদের বিরুদ্ধে জিততে গেলে আমাদেরও একশো ভাগ দিতে হবে।’’

হাবাসের দলের কাছে ভরসার নাম অবশ্য রয় কৃষ্ণই। তিনি গোল পেলে দল জেতে, তিনি ব্যর্থ হলে দলও হারে। এমন এক মিথ থাকলেও কোচ হাবাস জানিয়ে রেখেছেন, কৃষ্ণ প্রতিদিন একা ম্যাচ জেতাবে তা তো ঠিক নয়। সবাইকে চেষ্টা করতে হবে ম্যাচে। রয় কৃষ্ণও বলে রেখেছেন, ‘‘এতদূর এসে আমরাও হতাশ করব না।’’

 

 

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More