লকডাউনের সেই ‘বাতিল বিয়ে’ হল এবার, কেকেআরের রহস্য স্পিনার বরুণ আবদ্ধ হলেন বিবাহবন্ধনে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: তাঁর পদবী শুনে অনেকেই মনে করেন তিনি হয়তো প্রবাসী বাঙালি, তাই কলকাতা নাইট রাইডার্স দলে তাঁর অন্তর্ভূক্তির পরে সবাই ভেবেছিলেন, এই বুঝি কোনও বাঙালিকে নেওয়া হল দলে।

আদতে তা নয়, কেকেআরের রহস্য স্পিনার বরুণ চক্রবর্তী তামিলনাড়ুর বাসিন্দা, তিনি থাকেন চেন্নাইয়ের অভিজাত অঞ্চলে। বরুণ কর্ণাটকের বিদারে জন্মেছেন। ১৩ বছর বয়সে প্রথম ক্রিকেট মাঠে গিয়েছিলেন।

পড়াশুনোয় ভাল ছিলেন বলে তাঁর বাবা-মা ছেলেকে উচ্চবিদ্যার জন্য চেন্নাইয়ের ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজে ভর্তি করে দিয়েছিলেন। প্রথম ও দ্বিতীয় বর্ষে ভাল মার্কসও পান। কিন্তু বেশিদিন আর বি টেক পড়েননি, ক্রিকেটের নেশায় ভর্তি হন চেন্নাইয়ের জুবিলি ক্লাবে।

সেই শুরু, তারপর আর পিছন ফিরে তাকাননি। মাঝে চোট পেয়েছিলেন অবশ্য, কিন্তু ফিরে এসে দেখলেন জোরে বোলিং করতে পারবেন না। তাই বেছে নেন স্পিন বোলিং। সেই বরুণ এবার আইপিএলে বেশ দাগ কেটেছেন অধিকাংশ ম্যাচেই। ভাল বোলিংয়ের সুবাদে অস্ট্রেলিয়াগামী দলে সুযোগ পান। বরুণের ঝুলিতে নানা ধরনের স্পিন থাকে, ক্যারম বল, ফ্লিপার, ফ্লোটার, গুগলিতেও সিদ্ধহস্ত তিনি।

এ না হয় গেল বরুণের ক্রিকেট ও পড়াশুনোর জীবন। গত মে মাসেই ঠিক ছিল তিনি বিয়ে করবেন তাঁর কলেজের বান্ধবী নেহা খেড়েকরকে। কিন্তু সেইসময় সারা দেশ জুড়ে লকডাউনের জন্য পুরো পরিকল্পনাই বাতিল হয়ে যায়। বিয়ের অনুষ্ঠান বানচাল করতে হয়। কারণ বরুণের বাড়ির এলাকা কনটেনমেন্ট জোন হিসেবে চিহ্নিত হয়, আর তাঁর মহারাষ্ট্রের বান্ধবীও মুম্বইতে ছিলেন গৃহবন্দীই।

সেই বাতিল হয়ে যাওয়া পরিকল্পনা অবশেষে দিনের আলো দেখল এবার। কোভিড প্রোটোকল মেনে একেবারে ঘরোয়া অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়েই নতুন ইনিংস শুরু করলেন ভারতীয় স্পিনার।

আর রিসেপশনেই ক্রিকেটে মাতলেন স্ত্রীর সঙ্গে। কেকেআরের পোস্ট করা ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, বরুণের ডেলিভারিতে দিব্যি ব্যাটিং করছেন নেহা। যে স্পিনারের স্পিন রহস্য ভেদ করতে গিয়ে এবছর আইপিএলে রীতিমতো হিমশিম খেতে হয়েছে বিপক্ষ ব্যাটসম্যানদের, তাঁর ডেলিভারিই কিনা হাসি মুখে খেলে দিচ্ছেন নেহা। মজা করে সেই রহস্য ভেদের কথাই পোস্টে লেখে কেকেআর। সঙ্গে নবদম্পতিকে নতুন জীবনের জন্য অভিনন্দনও জানায় তারা।

 

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More