‘হালাল মাংস’ বিতর্কে অস্বস্তিতে বিসিসিআই, বিবৃতি দিতে বাধ্য হলেন কোষাধ্যক্ষ

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ভারতীয় ক্রিকেটারদের মেনুতে হালাল মাংস (Halal Meat) রাখা নিয়ে বিতর্ক অব্যাহত। রীতিমতো সমালোচনা শুরু হয়ে গিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের নামে। বলা হচ্ছে, যে দলে বিভিন্ন ধর্মের ক্রিকেটাররা রয়েছেন, সেখানে হালালের মাংস মেনুতে থাকবে, এটা কী ধরণের নির্দেশ।

বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হচ্ছে ভারত ও নিউজিল্যান্ডের প্রথম টেস্ট ম্যাচ। কানপুরে খেলা, তার আগে এই বিষয়টি নিয়ে তুমুল আলোচনা চলছে।

‘হালাল মাংস’ নিয়ে তুমুল বিতর্কে যখন আলোড়িত ভারতীয় ক্রিকেট তখন নীরবতা ভাঙল বিসিসিআই। বোর্ডের তরফে জানানো হয়েছে, এই খবরটাই ঠিক নয়, কেউ এটা রটিয়েছে।

বোর্ডের কোষাধ্যক্ষ অরুণ ধূমল বিবৃতি দিয়েছেন, ক্রিকেটারদের খাদ্য তালিকা নিয়ে কোনও নির্দেশ বোর্ড থেকে দেওয়া হয়নি, এটা ভিত্তিহীন খবর।

তিনি আরও বলেন, ‘‘এই ধরনের ডায়েট প্ল্যানের কথা কোনওদিনও বলা হয়নি, আর বলাও হবে না ক্রিকেটারদের। কী খেতে হবে, কী খাওয়া যাবে না, তা নিয়ে বোর্ড কখনওই কোনও ক্রিকেটারকে কোনও পরামর্শ দিতে পারে না, সেটি একান্তই ক্রিকেটারদের ব্যক্তিগত ব্যাপার।’’

অতিমারী আবহে টিম হোটেলে বায়ো-বাবলের মধ্যেই থাকতে হবে ভারতীয় এবং কিউয়ি ক্রিকেটারদের।  জানা গিয়েছে, ভারতীয় ক্রিকেটাররা কখন কী খাওয়া-দাওয়া করবেন, সেই মেনুও ঠিক করে ফেলা হয়েছে।

স্টেডিয়ামের মিনি ব্রেকফাস্ট, লাঞ্চ, টি টাইম স্ন্যাক এবং ডিনারের মেনুও ঠিক করা আছে। সেই মেনুতে রাখা হয়নি শূকরের মাংস বা পর্ক এবং গোমাংস বা বিফ। তবে উল্লেখ রয়েছে ‘হালাল’ মাংসের। আর সেখান থেকেই যত বিতর্কের সূত্রপাত।

হালাল একটি আরবিক শব্দ, এই শব্দটি কোরানের কাছে স্বীকৃত নয়। তাই এটি নিয়ে সমালোচনা হচ্ছে বেশি। দেশ-বিদেশে অবশ্য এই নামের মাংস খাওয়া নিয়ে বিধি রয়েছে। কিন্তু ভারতে বিভিন্ন ধর্মের মানুষ থাকেন, তাই এই শব্দ ব্যবহার করা নিয়ে সমস্যা রয়েছে।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.