ডুরান্ড ফাইনালের টিকিট কাটতে মহামেডান তাঁবুর সামনে লম্বা লাইন, ফিরল সেই উন্মাদনা

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কলকাতা (Kolkata) মাঠের সেই চেনা ছবি ফিরল শুক্রবার দুপুরে। এর আগে দেখা গিয়েছে, মহামেডান স্পোর্টিং (Mohammedan Sporting) মাঠে টিকিটের লম্বা লাইন। সেবার আইপিএলের (IPL) টিকিট কাটার জন্য ভিড় জমিয়েছিলেন সমর্থকরা। এবার ভিড় জমিয়েছেন ডুরান্ড কাপ (Durand Cup) ফাইনালের টিকিট কাটতে।

এবার একেবারে উলটপুরান। এদিনও রেড রোডের পাশের ক্লাবে টিকিটের লম্বা লাইন দেখে অনেকের প্রশ্ন, কি দাদা আইপিএলের সেমিফাইনাল ও ফাইনাল কী আবার কলকাতায় হবে নাকি?

আরও পড়ুন: পেজ-ভূপতির সম্পর্কের টানাপোড়েন নিয়ে ওয়েবসিরিজ ‘ব্রেক পয়েন্ট’, তুমুল আগ্রহ দেশ জুড়ে

যখন তাঁরা শুনেছেন ডুরান্ড কাপ ফাইনালের জন্য এমন টিকিটের লাইন, সেইসময় তাঁরা অবাকই হয়েছেন। কারণ যে টুর্নামেন্টে এটিকে-মোহনবাগান ও ইস্টবেঙ্গল খেলছে না, সেই আসরে এমন উন্মাদনা দেখলে অবাকই হতে হয়।

মহামেডান আবারও প্রমাণ করল, তারাই কলকাতা ফুটবলের তৃতীয় প্রধান। ওই ক্লাবের সমর্থকরাও দারুণ ফুটবল অন্তপ্রাণ, সেটাই প্রমাণ করলেন তাঁরা। ডুরান্ড ফাইনালে মহামেডানের সামনে গোয়া এফসি। ওই ম্যাচ দেখতে ৩৫ হাজার দর্শক মাঠে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। সেই কারণেই আগে এলে আগে পাবে, ভিত্তিতে টিকিট বিক্রি হয়েছে।

আটের দশকে এমন মেঠো ফুটবল উন্মাদনা চোখে পড়েছে। সেইসময় দর্শকরা রাত জেগে লাইনে দাঁড়িয়ে টিকিট কেটে বিকেলে খেলা দেখে বাড়ি ফিরতেন। সেই উন্মাদনা যেন মনে করাল কলকাতা মাঠ।

মোহনবাগান ও ইস্টবেঙ্গল সমর্থকরাও এবার ডুরান্ডের খেলা দেখতে যুবভারতীতে ভিড় জমিয়েছেন। তাদের দল না খেলতে পারে, কিন্তু মাঠের পরিবেশ বহুদিন নেওয়া হয়নি তাঁদেরও করোনা পরিস্থিতির জন্য। তাই দলের বাদবিচার না করে তাঁরাও মহামেডান মাঠ মুখো হয়েছিলেন, এটিও ব্যতিক্রমী ঘটনা।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকা ‘সুখপাঠ’

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.