বার্সেলোনায় মেসির ২৫০ কোটি টাকার হোটেল ভেঙে ফেলার নির্দেশ

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ব্যালন ডি’অর পেয়েছেন লিওনেল মেসি, তাও এক আধবার নয়, মোট সাতবার। তাঁর এই মহানজির আদৌ কেউ স্পর্শ করতে পারবেন কিনা জোর আলোচনা চলছে।

সুখের সাগরে ভাসছিলেন মেসি, কিন্তু অতর্কিতে মাঠের বাইরের একটি ঘটনা নাড়িয়ে দিয়েছে তাঁকেও। চলতি মরসুমে তিনি প্যারিস স্য জ্যঁ-তে সই করেছেন, কিন্তু মন পড়ে রয়েছে বার্সেলোনায়। কিন্তু একটি শহরে নিজে থাকা, আর না থাকার মধ্যে অনেক ফারাক।

বার্সেলোনায় নিজের ২১ বছরের সাম্রাজ্য ঢেলে সাজিয়েছিলেন ফুটবল রাজপুত্র। তাঁর একটি ৭৭ রুমের বিলাসবহুল হোটেলও রয়েছে, যার আনুমানিক মূল্য ২৫০ কোটি।

স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম ‘এল কনফিডেনশিয়াল’র প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মেসির হোটেলটি বার্সেলোনা শহরের নিয়ম মেনে তৈরি করা হয়নি, তাই এটি ভাঙার আদেশ দেওয়া হয়েছে আদালতের পক্ষ থেকে।

‘মিম সিটজেস’ নামক হোটেলটি বার্সেলোনার মাঠ ন্যু ক্যাম্পের কাছেই অবস্থিত। এই হোটেলের পাশেই আরেক বাড়িতে থাকতেন মেসি। ২০১৭ সালে নতুন করে গড়ার পর এই হোটেলটির মূল্য দাঁড়িয়েছে ২৬ মিলিয়ন ইউরো বা ২৫০ কোটি টাকার বেশি। এছাড়াও আরও দুটি হোটেল রয়েছে মেসির। সেটি নিয়ে অবশ্য কোনও সমস্যা নেই।

মেসি এই হোটেলটি কেনার আগেই যথাযথ বিল্ডিং কোড অনুসরণ না করায় ভাঙার আদেশ দেওয়া হয়েছিল। এই হোটেলের বারান্দাগুলো স্বাভাবিকের চেয়ে অনেক বড়। এখন এগুলিকে ছোট করতে চাইলে পুরো ভবনই ভেঙে পড়তে পারে। শুধু তাই নয়, এই হোটেলের অগ্নি নির্বাপন ব্যবস্থা নিয়েও সন্তুষ্ট হতে পারেনি কর্তৃপক্ষ।

সবথেকে বড় বিষয়, মেসি বার্সেলোনায় থাকলে যেভাবে হোটেল ভেঙে ফেলার বিপক্ষে প্রভাব খাটাতে পারতেন, সেটি সম্ভব নয় বর্তমানে। তিনি প্যারিসে থাকেন, তাঁর আইনজীবী কতটা কী করতে পারবেন, সংশয় থেকেই যায়।

 

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.