মালদ্বীপেও বাজছে রয় কৃষ্ণের গোলের বাঁশি, পিছিয়েও মধুর জয় এটিকে-মোহনবাগানের

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আন্তোনিও লোপেজ হাবাসের দুটি মাস্টারস্ট্রোকেই কিস্তিমাত এটিকে-মোহনবাগানের। এক গোলে পিছিয়ে গিয়েও ঘরের দল মাজিয়া স্পোর্টস ক্লাবকে হারাল ৩-১ গোলে। এই জয়ের সুবাদে এএফসি কাপের পরের রাউন্ডে যাওয়ার সুযোগ প্রায় তৈরি করে নিল সবুজ মেরুন দল।

বিরতির আগে যে এটিকে-মোহনবাগানকে দেখা গিয়েছিল, সেটিই বদলে গেল দ্বিতীয়ার্ধে। সেইসময় মাঠে ফুল ফোটাচ্ছেন রয় কৃষ্ণ, মনবীর সিংরা। বিরতির পরেই তিনটি গোল দলের। খেলার ৪৭ মিনিটে এটিকে মোহনবাগানের হয়ে সমতা ফেরানোর গোল লিস্টন কোলাসোর। যিনি হুগোর বদলি হিসেবে মাঠে নেমেছিলেন। মনবীরের ক্রস থেকে কোলাসো দুরন্ত হেডে গোল করে যান।

যদিও হাবাসের মাস্টারস্ট্রোক বিরতির পরেই এসেছে। দীপক টাংরির বদলি হিসেবে মাঠে নামেন শেখ সাহিল। আবার হুগো বৌমাসকে নামানো হয় ডেভিড উইলিয়ামসের বদলে। তিনিই ম্যাচের নায়ক। কারণ রয় কৃষ্ণ ও মনবীরকে দিয়ে গোল করিয়েছেন এই স্প্যানিশ তারকা। হুগোই ম্যাচের রং বদলে দিয়েছেন। তিনি এমনভাবে খেলা তৈরি করেন, বিপক্ষ খেলা থেকে হারিয়ে যায়।

খেলার ৬৪ মিনিটে হাবাসের দল ২-১ গোলে এগিয়ে যায় হুগোর পাস থেকে। সেই সোনার পাস থেকে রয় কৃষ্ণ গোল করেন প্লেসিংয়ে চকিতে শট মেরে।

খেলার ৭৭ মিনিটে সেই হুগোর পাস ধরেই ঠান্ডা মাথায় দলের জয় নিশ্চিত করেন মনবীর সিং। তিনি যে এখন অনেক বেশি পরিণত, সেটি বারবার বুঝিয়েছেন। খেলার সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ দিক হল, এটিকে মোহনবাগানের ম্যাচে বল পজেশন কম থাকলেও তারা আসল কাজ গোল করে গিয়েছে।

সবুজ মেরুন শিবির এএফসি কাপের নকআউট পর্বে চলে গিয়েছে, বলাই যেতে পারে। ২৪ অগাস্ট হাবাসের দল খেলতে নামবে বাংলাদেশের বসুন্ধরা ক্লাবের বিপক্ষে, ওটিই গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচ। ওই ম্যাচ হারলেও রয় কৃষ্ণদের সমস্যার হওয়ার কথা নয়।

মোহনবাগান দল: অমরিন্দর, প্রীতম, সুমিত, ম্যাকহুগ, শুভাশিস, মনবীর, দীপক (সাহিল), লেনি, লিস্টন, রয় কৃষ্ণ, উইলিয়ামস (হুগো)।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.