মেঘ কাটছে ইস্টবেঙ্গলে, এবারও ফুটবলার দিয়ে লাল হলুদের পাশে থাকবে এটিকে-মোহনবাগান

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: খুব সম্ভবত সামনের সপ্তাহে ইস্টবেঙ্গলের চুক্তি সংক্রান্ত সমস্যা মিটতে চলেছে। রাজ্য সরকারের হস্তক্ষেপেই তা মিটবে বলে ধারণা কলকাতা ফুটবলমহলের। ফের নবান্নতে ডাক পড়তে পারে লাল হলুদ কর্তা ও ইনভেস্টর শ্রী সিমেন্টের আধিকারিকদের।

মঙ্গলবার থেকে ইস্টবেঙ্গল ফের দলগঠনে উদ্যোগী ভূমিকা নিয়েছে। তাদের দল থেকে নারায়ণ দাস এদিনই চেন্নাইয়ান এফসি-তে যোগ দিলেন। গোলরক্ষক দেবজিৎ মজুমদারও ক্লাব ছেড়ে দিয়েছেন। ভাল একটা গোলরক্ষকের খোঁজে রয়েছে লাল হলুদ ক্লাব।

তার মধ্যে এদিনই এটিকে-মোহনবাগান থেকে ইস্টবেঙ্গলকে বার্তা দেওয়া হয়েছে, তারা দলগঠনে সহায়তা করবে চির প্রতিপক্ষ ক্লাবকে। গত মরসুমে দু’জন ফুটবলারকে রিলিজ করেছিল এটিকে-এমবি। এবারও সেটাই করবে তারা। যদিও এটি নিয়ে প্রকাশ্যে কিছু বলতে নারাজ সবুজ মেরুন কর্তারা। তাঁরা মনে করছেন, কাউকে কোনও সহায়তা করতে গেলে গোপনে করাই ভাল, তা হলে তার লক্ষ্য সফল হয়।

এটিকে-মোহনবাগান দলের তরফ থেকে গোলরক্ষক অরিন্দম ভট্টাচার্য্য ও স্ট্রাইকার জবি জাস্টিনকে রিলিজ করতে চায়। ইস্টবেঙ্গলকে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। তারা সিদ্ধান্ত জানাবে দু’একদিনের মধ্যেই। অরিন্দমের বিকল্প পেয়ে গিয়েছে হাবাসের দল। তারা মুম্বই এফসি থেকে নিয়েছে অমরিন্দর সিংকে। তাই অরিন্দমকে ছেড়ে দিলে সমস্যা হবে না।

জবি লাল হলুদেই ভাল খেলছিলেন, তিনি অর্থের লোভে ক্লাব ছাড়তেই তাঁর ফর্ম নিন্মমুখী। তাঁকে ফের ঘরে ফেরাতে ভূমিকা নিচ্ছে প্রতিপক্ষ ক্লাবই।

এদিকে, ইনভেস্টরদের সঙ্গে কথা বলার আগে ইস্টবেঙ্গলের কর্তারা দফায় দফায় গত সপ্তাহ থেকে তাঁবুতেই বৈঠক করেছেন।  ইনভেস্টরের দেওয়া শর্তগুলির মধ্যে কোথায় সমস্যা, তাঁরা নিজেদের মধ্যে খতিয়ে দেখেছেন। নবান্নতে যাওয়ার আগে ভালভাবে প্রস্তুতি নিয়ে যেতে চান কর্তারা। কারণ ওই সময় মুখ্যমন্ত্রীর সামনে তাঁদের বলতে হবে শর্তের সমস্যাগত দিকগুলি।

 

 

 

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.