কলার টুকরোর জন্য লড়াই করল বুলবুল পাখি, মকর সংক্রান্তিতে হাজার মানুষের ভিড় গোপীবল্লভপুরে

মকর সংক্রান্তির দিন জঙ্গলমহলের বিভিন্ন এলাকায় হয় মোরগের লড়াই। মোরগের পায়ে বেঁধে দেওয়া ছুরিতে রক্তারক্তিও হয়। কিন্তু গোপীবল্লভপুরে এই সংক্রান্তির দিনে মানুষ যে পাখির লড়াই দেখতে মেতে ওঠেন সেখানে কোনও রক্তপাত হয় না।

দ্য ওয়াল ব্যুরো, ঝাড়গ্রাম: প্রতি বছর মকরসংক্রান্তির দিন রীতিমতো সামিয়ানা খাটিয়ে বুলবুল পাখির লড়াইয়ের আসর বসে গোপীবল্লভপুরে। দীর্ঘ ঐতিহ্য রক্ষা হল বৃহস্পতিবারও।

এই লড়াই মূলত দুই পাড়ার সম্মানের লড়াই। বাজার সাই ও দক্ষিণ সাই, যে পাড়ার বুলবুল বেশিবার জেতে, জিত সেই এলাকার। আরও একটি নিয়ম আছে এই খেলার। যে পাখি হেরে যায় তার ঝুঁটি একটু কেটে উড়িয়ে দেওয়া হয়। আর যে পাখি জেতে, তাকে ঘরে নিয়ে গিয়ে কিছু দিন রেখে, খাইয়ে, যত্ন করে তারপরে জঙ্গলে ছাড়া হয়।

মকর সংক্রান্তির দিন জঙ্গলমহলের বিভিন্ন এলাকায় হয় মোরগের লড়াই। মোরগের পায়ে বেঁধে দেওয়া ছুরিতে রক্তারক্তিও হয়। কিন্তু গোপীবল্লভপুরে এই সংক্রান্তির দিনে মানুষ যে পাখির লড়াই দেখতে মেতে ওঠেন সেখানে কোনও রক্তপাত হয় না।

খেলার  নিয়ম হল, সকাল থেকে না খাইয়ে রাখতে হয় বুলবুলকে। এরপর খেলার জায়গাতে একটা মঞ্চে রাখা হয় কলার টুকরো। সেই এক টুকরো কলা খাবে বুলবুল, তাও আবার লড়াইয়ে জিতে। খাদ্যের অধিকারের জন্যই যুদ্ধ।  দুই পাখির লড়াই দেখতে সুদূর ঝাড়খন্ড, ও়ডিশা থেকে আসেন অসংখ্য মানুষ। পাখি দুটিকে ঘিরে বসেন তাঁরা। লড়াই ঘিরে সে এক হইহই কাণ্ড!

গুপ্ত বৃন্দাবন বলে পরিচিত কয়েকশো বছরের ঐতিহ্যবাহী এই বুলবুলির লড়াই গোপীবল্লভপুরের আদি সংস্কৃতি। মকর সংক্রান্তির দিন গোবিন্দজিউর মন্দিরের সামনে বসে এই বুলবুলির লড়াই। তার আগে প্রায় দু’মাস ধরে এই বুলবুলির লড়াইয়ের প্রস্তুতি চলে। পাখি ধরা থেকে শুরু করে পাখিকে বেঁধে রেখে লড়াইয়ের জন্য প্রশিক্ষণ দেওয়া দু’মাস ধরে চলতে থাকে। এ বারের লড়াইয়ে অংশ নিয়েছে একশোরও বেশি বুলবুল। গোপীবল্লভপুর এক ব্লকের পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য সত্যরঞ্জন বারিক বলেন “এটা আমাদের এখানকার কয়েকশো বছরের পুরনো সংস্কৃতি। এই মকরসংক্রান্তির দিন এই লড়াই দেখতে আসেন বাইরের বহু মানুষও।’’

প্রতিটি রাউন্ডে যে পাখি হেরে যায় সেই পাখির মাথার ঝুঁটি কেটে দিয়ে বোঝানো হয় সে বিজিত। আর যে বিজয়ী সেই পাখির মালিককের হাতে তুলে দেওয়া হয় ট্রফি সহ আনুসঙ্গিক নানা পুরস্কার। বৃহস্পতিবার দক্ষিণ সাই পাড়াকে হারিয়ে জয়ী হল বাজার সাই পাড়া।

 

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More