ভোটের মুখে চা শ্রমিকদের নিয়ে সরগরম আলিপুরদুয়ারের রাজনীতি

কেউ মজুরি বৃদ্ধির প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন তো কেউ আবার বন্ধ চা বাগান খোলার প্রতিশ্রতি দিচ্ছেন। বিজেপির রাজ্য সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু বলেন, ‘‘বিজেপি ক্ষমতায় এলে চা শ্রমিকদের ৩৩০ টাকা মজুরি নির্ধারণ করবে। আলিপুরদুয়ারের বিধায়ক সৌরভ চক্রবর্তী বলেন, ‘‘মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চা শ্রমিকদের মজুরি বাড়িয়েছেন। তাঁদের মজুরি আরও বাড়ানোর ব্যাপারে ভাবনা চিন্তা চলছে।

দ্য ওয়াল ব্যুরো, আলিপুরদুয়ার: ভোট যত এগিয়ে আসছে উত্তরের চা শ্রমিকদের দেওয়া প্রতিশ্রুতির বহরও বাড়ছে তত। কেউ মজুরি বৃদ্ধির প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন তো কেউ আবার বন্ধ চা বাগান খোলার প্রতিশ্রতি দিচ্ছেন। বুধবার চা শ্রমিকদের নিয়েই সরগরম থাকল আলিপুরদুয়ারের রাজনীতি।

বুধবার আলিপুরদুয়ারে চা শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধি সহ একাধিক দাবিতে মিছিল করে বিজেপি। আলিপুরদুয়ার শহরের বি এম ক্লাবের মাঠ থেকে মিছিল করে জেলাশাসকের দফতরের সামনে পৌঁছয়। মিছিল শেষে জেলাশাসককে স্মারকলিপি দেওয়া হয়। এখানেই বিজেপির রাজ্য সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু বলেন, ‘‘বিজেপি ক্ষমতায় এলে চা শ্রমিকদের ৩৩০ টাকা মজুরি নির্ধারণ করবে। চা শ্রমিকদের জমির পাট্টার জন্য সুনির্দিষ্টভাবে কাজ করবে আমাদের সরকার।’’

রাজ্যের চা শ্রমিকদের বর্তমান মজুরি দৈনিক ১৭৬ টাকা। এই মজুরি বৃদ্ধির প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন শাসক দলের নেতারাও। আলিপুরদুয়ারের বিধায়ক সৌরভ চক্রবর্তী বলেন, ‘‘মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চা শ্রমিকদের মজুরি বাড়িয়েছেন। তাঁদের মজুরি আরও বাড়ানোর ব্যাপারে ভাবনা চিন্তা চলছে। তাঁদের কীসে ভাল হবে সে ব্যাপারে সরকার সম্পূর্ণ সজাগ।’’

বুধবার আলিপুদুয়ার জেলার বীরপাড়া হাইস্কুলে শ্রমিক মেলার উদ্বোধনে এসেছিলেন রাজ্যের শ্রমমন্ত্রী মলয় ঘটক। স্বাভাবিকভাবেই এখানেও উঠল চা শ্রমিকদের প্রসঙ্গ। শ্রমমন্ত্রী মলয় ঘটক বলেন, ‘‘শুধুমাত্র লকডাউনের সময় আমরা ন’টা চা বাগান খুলেছি। বন্ধ চা বাগান খোলার সময় যখন যেভাবে যা করা দরকার আমাদের দফতর তা করছে। চা শ্রমিকদের অবস্থা নিয়ে রাজ্য ওয়াকিবহাল।’’ এখানে প্রধান মন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে তীব্র ভাষায় আক্রমন করে মলয় ঘটক বলেন, ‘‘২০১৪ সালে নরেন্দ্র মোদী বলেছিলেন আমি চাওয়ালা। মানুষ ভেবেছিলেন চাওয়ালা প্রধানমন্ত্রী হলে গরীব মানুষের জন্য কাজ করবেন। এরপর যখন আবার ভোট এল তখন বললেন আমি চৌকিদার। দেশকে রক্ষা করছি। কিন্তু এই চৌকিদারের সময় দেশের সম্পত্তি লুঠ হচ্ছে।’’

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More