শান্তিপূর্ণ আত্মসমর্পণের পর ২২ নিরস্ত্র আফগান কম্যান্ডোকে গুলি করে খুন তালিবানের

0

ওয়াল ব্যুরো: মার্কিন সেনাবাহিনী বিদায় নেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করতেই আফগানিস্তান পুনর্দখলে ঝাঁপিয়ে পড়া তালিবান তাদের পুরানো হিংস্র চেহারা দেখাতে শুরু করেছে। দাঁত-নখ বের করছে তালিবান। ঠান্ডা মাথায় তারা খুন করল আফগানিস্তানের ফারিয়াব প্রদেশের ২২ আফগান কম্যান্ডোকে। শান্তিপূর্ণ ভাবে  আত্মসমর্পণ করলেও তাদের রেহাই দেয়নি তালিবান। মার্কিন সংবাদ মাধ্যমে সিএনএনের হাতে একটি ভিডিও এসেছে, যাতে কাউকে হুকুম করতে শোনা যাচ্ছে, সারেন্ডার, কম্যান্ডোস, সারেন্ডার। অর্থাত কম্যান্ডোরা ধরা দাও! পরের দৃশ্যেই দেখা যাচ্ছে, একটি বাড়ি থেকে আফগান স্পেশাল ফোর্সেস ইউনিটের প্রায় দু ডজন নিরস্ত্র সদস্য বেরিয়ে আসছে। তারা রাস্তায় সারি দিয়ে দাঁড়াতেই মাত্র ৫-৭ সেকেন্ড বন্দুকের গর্জন শোনা গেল। সব কম্যান্ডো মৃত। রাস্তায় পড়ে তাদের গুলিবিদ্ধ দেহ।

এই নৃশংস প্ল্যানমাফিক হত্যাকাণ্ড ঘটেছে গত ১৬ জুন, ফারিয়াব প্রদেশের দওলত আবাদে। জায়গাটা তুর্কমেনিস্তান –আফগানিস্তান সীমান্তের কাছে।

একাধিক প্রত্যক্ষদর্শীর সঙ্গে কথা বলে তারা ভিডিওর সত্যতা সম্পর্কে নিশ্চিত হয়েছে বলে জানিয়েছে সিএনএন।

জনৈক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, গত মাসে দওলত আবাদ টাউনের দখল ধরে রাখতে রক্তক্ষয়ী লড়াইয়ের পর আফগান কম্যান্ডোদের অস্ত্র ভান্ডার ফুরিয়ে যায়। তালিবান জঙ্গিরা তাদের ঘিরে ফেলে। তাদের সামনে ধরা দেওয়া ছাড়া আর কোনও  রাস্তা ছিল না। তালিবান তাদের আত্মসমর্পণ করতে বলে। তারা অস্ত্র ফেলে একে একে বেরিয়ে আসে। কিন্তু যেভাবে তাদের রাস্তায় দাঁড় করিয়ে গুলিবৃষ্টি চালিয়ে হত্যা করা হল, তা অকল্পনীয়, অভাবনীয়।

২২জন কম্যান্ডোর  দেহই উদ্ধার হয়েছে বলে জানিয়েছে রেড ক্রস।

যদিও তালিবান সিএনএনকে বলেছে, কম্যান্ডোদের গুলি করে ফেলে দেওয়ার ভিডিওটি ভুয়ো, সরকারি প্রচার, যাতে লোকে আত্মসমর্পণ না করার সাহস পায়। তালিবানের এক মুখপাত্রের দাবি, তারা এখনও ২৪ জন কম্যান্ডোকে ফারিয়াব প্রদেশে বন্দি করে রেখেছে। যদিও কোনও প্রমাণ  দেয়নি তার।

তালিবানের দাবি খারিজ করে আফগান প্রতিরক্ষামন্ত্রক জানিয়েছে, ওরা কম্যান্ডোদের আটকে রেখেছিল, পর তাদের মেরে ফেলেছে।

 

 

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.