দিল্লির প্রকল্পে ‘বাংলা’ জুড়লেই টাকা বন্ধ! মমতা কী বললেন?

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বাংলার বাড়ি, বাংলা সড়ক যোজনা ইত্যদি সব কেন্দ্রের অনুদানে চলা প্রকল্প। এগুলোর নাম বদল করেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার। কিন্তু কেন্দ্র বলছে, নাম বদল করলেই টাকা বন্ধ! তাই কি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন মুখ্যমন্ত্রী? কোনও ইতিবাচক সাড়া পেলেন কি?

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকারের প্রথম জমানায় এমনটা ছিল না। কেন্দ্রের অনুদানে যে প্রকল্পগুলি বাংলায় চলত সেগুলির নাম বদল হয়নি। যেমন স্রেফ জঙ্গলমহলের উন্নয়নের জন্যই কেন্দ্রে কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন সরকার ৮৭৫০ কোটি টাকা দিয়েছিল। কিন্তু পরে মোদী জমানায় মমতা দাবি করেন, কেন্দ্রের টাকা মানে কেন্দ্রেরই টাকা নয়। মানুষের করের টাকা। তার অংশ পায় রাজ্য। সুতরাং তা বাংলার হকের টাকা। সেই টাকার প্রকল্প যখন হবে তখন তার নাম হবে বাংলায়।

সন্দেহ নেই এর মধ্যে রাজনীতি রয়েছে। বিজেপি দেখছে, কেন্দ্রের প্রকল্পের নাম বদলে ক্রেডিট নিচ্ছে তৃণমূল সরকার। সূত্রের খবর, তাই দিল্লি এবার সাফ জানিয়েছে, প্রকল্পের নাম বদল করা হলে টাকা দেওয়া যাবে না। বুধবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে দেখা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তার পর সাংবাদিক বৈঠকে এ নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোয় রাজ্যের উন্নয়ন হলেই দেশের উন্নয়ন হয়। কেন্দ্রের উচিত রাজ্যগুলির পাশে থাকা। রাজ্যগুলিকে শক্তিশালী করা।

তাৎপর্যপূর্ণ হল, এদিন মমতার কথায় সংঘাতের সুর ছিল না। বরং অনেকের মতে, সমন্বয়ের কথাই বলতে চেয়েছেন তিনি। যা নিয়ে আবার রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের অনেকে নানারকম ব্যাখ্যা করছেন। আর কংগ্রেস বলছে, মোদী-দিদির সেটিং হয়ে গিয়েছে।

তবে বড় প্রশ্ন হল, মমতার যুক্তি কি মেনে নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী? এ ব্যাপারে স্পষ্ট কোনও কথা কেন্দ্রের তরফে জানানো হয়নি। রাজ্যের এক আমলার কথায়, কেন্দ্র কী অবস্থান নিচ্ছে তা কদিনের মধ্যেই পরিষ্কার হয়ে যাবে। তবে এটা ঠিক যে নাম বদল না করলে যদি অনুদান বন্ধ হয় তা হলে রাজ্য চাপে পড়ে যাবে। তখন প্রকল্পের আসল নাম ব্যবহার করা ছাড়া উপায় থাকবে না।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.