ময়লা পরিষ্কারের হাতেই পুজো উদ্বোধন, লালবাবু-শেখ সাহেবদের অভিনব সম্মান হুগলির ক্লাবের

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: রোজ সকালে ওঁরা বাঁশি বাজান। ঝড়, জল, শীত, গ্রীষ্ম উপেক্ষা করে মহল্লা ঝকঝকে রাখেন ওঁরা। যে হাতে ময়লা তোলেন প্রতিদিন, মহামারীর সংকট থেকে উৎসবের দিনগুলিতে যাঁদের ছাড়া চলবে না, সেই তাঁদেরই অভিনব সম্মান দিল হুগলির উত্তরপাড়ার মাখলা নবমিলন ক্লাব (Durga Puja)।

এই ক্লাবের দুর্গা মণ্ডপের ফিতে কেটে, প্রদীপ জ্বালিয়ে পুজোর উদ্বোধন করলেন উত্তরপাড়া-কোতরঙ পুরসভার আট সাফাই কর্মী। তাঁরা হলেন নীলকুমার নস্কর, শেখ সাহেব, পিন্টু ঘোষ, মুন্না দাস, লালবাবু, সঞ্জয় অধিকারী, জয়ন্ত মণ্ডল ও স্বরূপ দত্ত।

প্রত্যেকের হাতে কমিটির পক্ষ থেকে মিষ্টি, পুষ্পস্তবক, স্মারক ও এক হাজার টাকার সাম্মানিক তুলে দেওয়া হয়। শঙ্খধ্বনি, পুষ্পবৃষ্টিতে মণ্ডপে ঢোকেন আট সাফাই কর্মী। ক্লাবের এমন সম্মান পেয়ে আপ্লুত তাঁরাও। কখনও তাঁরা ভাবেননি তাঁদের হাতে জ্বলবে মায়ের সামনে রাখা পঞ্চপ্রদীপ।

এমন ভাবনা কেন?

ক্লাবের তরফে বলা হয়েছে, কোভিড পরিস্থিতিতে সারা বিশ্ব দেখেছে সাফাইকর্মীদের ভূমিকা। নিজেদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সমাজের স্বার্থে দিন-রাত এক করে কাজ করে গিয়েছেন তাঁরা। এই যোদ্ধাদের সম্মান জানাতেই এবার তাঁদের দিয়ে মণ্ডপ উদ্বোধনের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল পুজো কমিটি। যা সাড়া ফেলেছে সমগ্র এলাকায়।

সেলিব্রিটিদের দিয়ে পুজো উদ্বোধন বাংলায় নতুন ঘটনা নয়। নেতামন্ত্রীরাও গুচ্ছ গুচ্ছ পুজো উদোধন করেন ফি বছর। অনেকে আবার নিজেদের দাড়ি পাল্লায় মেপে নেন আগের বছরের থেকে এ বারের সংখ্যা বাড়ল না কমল। কিন্তু চেনা ছক ভেঙে অন্য আঙ্গিকে পুজো উদ্বোধন করল মাখলার এই ক্লাব। যেখানে অস্পৃশ্যতা, ধর্মীয় গোঁড়ামি ভেঙে খান খান হয়ে গিয়েছে। সবার উৎসবে ফিতে কেটেছেন সঞ্জয় অধিকারী আবার প্রদীপ জ্বালিয়েছেন শেখ সাহেব।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকাসুখপাঠ

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.