মালবাজারে শুঁড়ে তুলে আছাড় দিল হাতি! গুরুতর জখম ৮ বছরের শিশু-সহ দুই

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সাইকেলে করে বাড়ি ফিরছিলেন চা বাগানের শ্রমিকরা। পথে হাতির (elephant) সামনে পড়ে যান। বাকিরা পালিয়ে রক্ষা পেলেও দুজনকে শুঁড়ে তুলে আছড়ে ফেলে হাতির দল! ঘটনায় ব্যাপক শোরগোল মালবাজার ব্লকের ওদলাবাড়ি চা-বাগান সংলগ্ন বাবুজোত এলাকায়। ভয়ে কেউ ঘর থেকে বেরোচ্ছেন না।

স্থানীয় সূত্রের খবর, শনিবার রাতে সাইকেলে করে রাজ্য সড়ক ধরে বাড়ি ফিরছিলেন চা শ্রমিকরা। দলে ছিল এক বালক। পথেই হাতির সামনে পড়ে যায় তারা। হাতি শুঁড়ে তুলে দুজনকে আছাড় মারে। গুরুতর আহত হন বছর বত্রিশের সঞ্জিত নাগাসিয়া এবং অমন মুন্ডা নামের ৮ বছরের এক বালক।

চুঁচুড়ার কুম্ভকর্ণ! পুলিশ এসে, তালা ভেঙে ঘুম ভাঙাল

আহতদের চিৎকারে স্থানীয় চা শ্রমিকেরা ছুটে আসেন। সঞ্জিত ও অমনকে উদ্ধার করে ওদলাবাড়ি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে আবার শিলিগুড়ির হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয় তাদের।

চা বাগানের অ্যাম্বুলেন্স চালক রোহিত ওড়াও এবং ওদলাবাড়ি চা বাগানের বাসিন্দা রঞ্জন কামি বলেন, শনিবার রাতে দুটি সাইকেলে করে মোট ৫ জন চা বাগানের যুবক বাবুজোত থেকে ওদলাবাড়ি চাবাগান শ্রমিক আবাসনে ফিরছিল। সেই সময়েই বাবুজোত সংলগ্ন রাজ্য সড়কের জোরাপুলের ওপর দিয়ে হঠাৎ এক দল হাতি রাস্তা পারাপার হতে থাকে। অন্ধকার গাঢ় হওয়ায় সাইকেল আরোহীরা কেউ প্রথমে হাতিদের দেখতে পায়নি। তারপরই হাতির সামনে পড়ে যান তারা। এরপরেই ঘটে ওই বিপদ।

সঞ্জিত নাগাসিয়াকে হাতি শুঁড়ে তুলে ছুড়ে ফেলে। ভেঙে দুমড়ে দেয় সাইকেল। পেছনের সাইকেলেই ছিল অমন মুন্ডা। সঙ্গে আরও তিনজন। বাকিরা পালিয়ে গেলেও অমন মুন্ডাকে হাতি ধরে ফেলে। শুঁড়ে তুলে আছড়ে ফেলে তাকেও। হাসপাতাল সূত্রে খবর, সঞ্জিত নাগাসিয়া এবং অমন মুন্ডার আঘাত গুরুতর।

ওদিকে হাতির দলটি, ঘটনাস্থল থেকে কিছুটা দূরে চা বাগানের মধ্যেই দাঁড়িয়ে থাকে। সেই দলে ৩০ থেকে ৪০ টি হাতি ছিল বলে জানা যায়। বন দফতর সূত্রে খবর, তারঘেরা জঙ্গল থেকে হাতিরা জাতীয় সড়কের ওপর এসে পড়েছিল। ওদলাবাড়ি চা বাগান সংলগ্ন এলাকায় কড়া নজরদারি চালাচ্ছেন বন কর্মীরা।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকা ‘সুখপাঠ’

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.