দক্ষিণ দিনাজপুরে আত্মঘাতী কিশোরী, চরম অপমান করেছিল প্রেমিকের পরিবার

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ১৬ বছরের কিশোরীর প্রেমের সম্পর্ক ছিল এক যুবকের সঙ্গে। মেয়েটির বাড়ি থেকে সকলে মেনেও নিয়েছিলেন এই সম্পর্ক। কিন্তু এখন সে পড়াশোনা করুক, বিয়ের কথা পরে ভাবা যাবে। এমনটাই চেয়েছিলেন পরিবারের সদস্যরা। সেইমতোই পড়াশোনা চালাচ্ছিল মেয়েটি। কিন্তু কেউ ভাবতে পারেনি, এই প্রেমের জেরেই মর্মান্তিক ভাবে আত্মঘাতী হবে কিশোরী!

দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার গঙ্গারামপুর ব্লকের কালদিঘি এলাকায় বাসিন্দা ১৬ বছরের আফরিনা খাতুন। পাশের গ্রামেরই বাসিন্দা, রিয়াজুল মিয়া নামের এক যুবককে ভালবাসত সে।

কিন্তু হঠাৎই খবর আসে, রিয়াজুলের বিয়ে হয়ে যাচ্ছে অন্য জায়গায়। রাগে-দুঃখে ভেঙে পড়ে আফরিনা। এর পরে প্রেমিকের দেওয়া বিভিন্ন উপহার জড়ো করে সে রওনা দেয় পাশের গ্রামে, প্রেমিকের বাড়িতে। সব উপহার ফিরিয়ে দেবে বলে ঠিক করে বিয়ের দিনই। কিন্তু অভিযোগ, রিয়াজুলের বাড়িতে তাকে চরম অপমান ও লাঞ্ছনার শিকার হতে হয়।

এর পরেই চরম অপমানে চূড়ান্ত পদক্ষেপ করে ফেলে কিশোরী। প্রেমিকের বাড়ি থেকে ফিরে এসে, গলায় ফাঁস লাগিয়ে সে আত্মহত্যা করে বুধবার। আত্মঘাতী কিশোরীর পরিবারের সদস্যরা দাবি করেছেন, এই ঘটনায় দায় রিয়াজুল ও তার পরিবারেরই। তাদের অপমানেই এত বড় ঘটনা ঘটে গেল। রিয়াজুলের পরিবারের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করা হবে বলেও জানিয়েছেন তাঁরা।

আফরিনার মৃতদেহ আজ, বৃহস্পতিবার বালুরঘাট পুলিশ মর্গে পাঠানো হয়েছে ময়নাতদন্তের জন্য।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.