শ্রমিক মেলায় সিটুর বিক্ষোভ, নেতাদের ধাক্কা মেরে বের করে দেওয়ার অভিযোগ শাসকদলের বিরুদ্ধে

সিটুর পূর্ব বর্ধমান জেলা সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য সনৎ ব্যানার্জি জানান, শ্রমিক মেলার নামে শ্রমিক কল্যাণের টাকা নষ্ট করা হচ্ছে। এইসব অনিয়মের প্রতিবাদ করলে তাদের বাধা দেওয়া হয়। শাসকদলের কর্মীরা তাদের ধাক্কা মেরে বাইরে বার করে দেন।

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো, পূর্ব বর্ধমান: শ্রমিকমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিক্ষোভ দেখাল বাম শ্রমিক সংগঠন। তার জেরে শাসকদলের কর্মী ও প্রশাসনের কর্মীদের সাথে বচসা বাধে তাঁদের। বাম শ্রমিক সংগঠন সিটুর নেতাদের ধাক্কা মেরে বের করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। শাসকদল অবশ্য এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

সিটুর পূর্ব বর্ধমান জেলা সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য সনৎ ব্যানার্জি জানান, শ্রমিক মেলার নামে শ্রমিক কল্যাণের টাকা নষ্ট করা হচ্ছে। আজও বাসে করে শ্রমিক মেলার নাম করে বর্ধমানে তৃণমূলের সমাবেশে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। কোভিডের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত শ্রমিকরা টাকা পাচ্ছেন না। এইসব অনিয়মের প্রতিবাদ করলে তাদের বাধা দেওয়া হয়। শাসকদলের কর্মীরা তাদের ধাক্কা মেরে বাইরে বার করে দেন।

পূর্ব বর্ধমানের মেমারিতে শ্রমিক মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিক্ষোভ দেখান বাম শ্রমিক সংগঠন সিটুর সদস্যরা। সংগঠনের পতাকা হাতে শ্রমিক মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের প্রবেশ করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকলে প্রথমে প্রশাসন বাধা দেয়। পরবর্তী সময় আধিকারিক ও  অনুষ্ঠানের উদ্যোক্তাদের পক্ষ থেকে বাধা দেওয়া হলে শুরু হয় বচসা। অভিযোগ, একরকম ধাক্কা দিয়ে বের করে দেওয়া হয় বাম শ্রমিক সংগঠনের কর্মীদের। অন্যদিকে এই অভিযোগ উড়িয়ে শাসকপক্ষের দাবি, বামেরা ইচ্ছাকৃতভাবে ঝামেলা করেছে। তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা তথা মেমারি পুরসভার প্রশাসক স্বপন বিষয়ী বলেন, ‘ঝামেলা, অশান্তি পাকানোর জন্যই সিটু নেতা কর্মীরা এই সব করেছে।

প্রাথমিক ভাবে মেমারি থানার পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনলেও, মেলা  চত্বরের সামনে মেমারি-সাতগাছিয়া রোডের উপর বামুনপাড়া মোড়ে রাস্তার উপর বসে বিক্ষোভ দেখায় সিটু। তাদের দাবি, শ্রমিক মেলার নামে বে-হিসাবি টাকা খরচ করা হচ্ছে, অথচ শ্রমিকরা কোনও পরিষেবা পাচ্ছেন না।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.