সনিয়ার সঙ্গে দেখা করতেই হবে, কোথায় লেখা আছে: মমতা

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: একটা সময় ছিল যখন দিল্লি গেলে একবার সনিয়া গান্ধীর সঙ্গে দেখা করতেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তা সে দশ নম্বর জনপথে গিয়ে হোক বা কংগ্রেস সংসদীয় দলের অফিসে। কেন না এও ঘটনা যে, মমতা কংগ্রেসের সঙ্গে জোটে থাকুন বা না থাকুন তাঁকে স্নেহ করতেন সনিয়া। সেই সনিয়ার সঙ্গে এ বার দেখা না করায় তাই প্রশ্নের মুখে পড়তে হল মমতাকে।

বুধবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার পর সাংবাদিক বৈঠক করেন তিনি। সেখানেই প্রশ্ন ওঠে, দিদি এ বার সনিয়া গান্ধীর সঙ্গে দেখা করলেন না কেন?

প্রথমে মমতা বলেন, ওঁরা পাঞ্জাব ভোট নিয়ে ব্যস্ত। তাই সময় চাইনি।

কিন্তু দিদি এ কথা বলার পরেও ফের প্রশ্ন ওঠে, সনিয়ার সঙ্গে দেখা করলেন না কেন দিদি?

এ বার কিছুটা হয়তো মেজাজ হারান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রেগে গিয়ে বলেন, সনিয়ার সঙ্গে দেখা করতেই হবে, এমন কি সংবিধানের কোনও ধারা আছে? তাঁর কথায়, দিল্লি এলেই প্রতিবার দেখা করতে হবে নাকি? এরকম কোনও বাধ্যবাধকতা আছে? আর আমি তো বললমা ওঁরা পাঞ্জাবের ভোট নিয়ে ব্যস্ত। তাই সময় চাইনি। এক প্রশ্ন বারবার করছেন কেন!

পর্যবেক্ষকদের মতে, সনিয়া-মমতা স্নেহের সম্পর্ক হয়তো এখন অতীত। আগে বাংলায় কংগ্রেস থেকে বিধায়ক, সাংসদ ভেঙে তৃণমূলে যাচ্ছিল। এখন ভিন রাজ্যের কংগ্রেস নেতাদেরও দলে টানছেন দিদি। উপরি অভিযোগ, বিজেপির বিরুদ্ধে কংগ্রেস কোনও আন্দোলনই করছে না। যা করার তৃণমূল করছে। প্রসঙ্গত দিদির গত দিল্লি সফরেও ছবিটা এরকম ছিল না। বাদল অধিবেশনের সময়ে রাজধানীতে গিয়ে সনিয়া ও রাহুল গান্ধীর সঙ্গে দেখা করেছিলেন তৃণমূলনেত্রী। তারপর সনিয়ার ডাকা বিরোধী নেতানেত্রীদের ভার্চুয়াল বৈঠকেও অংশগ্রহণ করেছিলেন মমতা।

মমতা-মোদীর এদিনের মিটিং টিপ্পনি কেটেছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি  অধীর চৌধুরী। বলেছেন, ও তো সেটিং চলছে। দিদি-মোদীর সেটিং। বিজেপিকে মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান, ছত্তীসগড়, পাঞ্জাবে হারিয়েছে কে?
কিন্তু অধীরকে নিয়ে প্রশ্ন করতে পাত্তা দিতে চাননি মমতা। বলেন, ও নিয়ে ব্লকের নেতাদের জিজ্ঞেস করুন।

কথায় বলে, রাজনীতি সম্ভাবনার খেলা। অনেকে মনে করছেন, মমতার এবারের দিল্লি সফরে অনেক সম্ভাবনার বীজ পোঁতা হল। আগামী দিনে জাতীয় রাজনীতিতে সমীকরণ বদলের ইঙ্গিত রয়েছে এতে।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.