হাওড়ায় আজব কাণ্ড! স্বামীর আত্মহত্যার সময়ে ছবি তুলে রাখলেন স্ত্রী

দ্য ওয়াল ব্যুরো, হাওড়া: স্বামী আত্মঘাতী হচ্ছেন আর স্ত্রী ব্যস্ত ছবি তুলতে। এমনই চাঞ্চল্যকর ভিডিও প্রকাশ্যে এসেছে। আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগে স্ত্রীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশসূত্রে জানা গেছে, বালি থানার অন্তর্গত বাদমতলার বাসিন্দা আমন সাউ। মঙ্গলা হাটে জামাকাপড়ের ব্যবসায়ী আমনের সাথে লিলুয়ার বাসিন্দা নেহা শুকলার প্রেম পর্ব চলে বছর পাঁচেক। গতবছরের ১১ ডিসেম্বর বিয়ে হয় তাঁদের। বিয়ের পর কিছুদিন ভালোভাবে কাটলেও দুজনের সম্পর্কে চিড় ধরতে শুরু করে। কারণ নেহার সঙ্গে হুগলির উত্তরপাড়ার এক যুবকের সঙ্গে বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক গড়ে ওঠে। যা নিয়ে স্বামী স্ত্রীর মধ্যে প্রায়ই গন্ডগোল হত।

আমনের বাড়ির লোকের অভিযোগ সংসারে মন ছিল না নেহার। মাঝেমধ্যেই পার্টি করে অনেক রাতে ফিরত। পার্টি করার জন্য আমনের থেকে প্রায়ই জোর করে টাকা চাইত। গত মার্চ মাসে শ্বশুরবাড়ির অমতে প্রেমিকের সঙ্গে দিল্লি যায়। কিছুদিন কাটিয়ে ফিরে এসে ডিভোর্স দেবার জন্য আমনকে চাপ দিতে থাকে।এই অবস্থায় নেহার মোবাইলে প্রেমিকের সাথে আপত্তিকর ছবি পেয়ে যায় আমন।

গত আট এপ্রিল রাতে এ নিয়ে যখন অশান্তি চরমে ওঠে তখন নেহা মোবাইলে তার স্বামীর কথোপকথন রেকর্ড করতে থাকে। তখন আমন বলে যে সে এমন কিছু করবে যা নেহাকে সারাজীবন মনে রাখতে হবে। এটা শুনে হাসতে থাকে নেহা। তখনই গলায় ফাঁস লাগিয়ে ঝুলে পড়ে আমন। যেটা ক্যামেরা বন্দি হয় নেহার মোবাইলে। এই অবস্থায় আমনকে কোনওভাবেই নেহা বাঁচানোর চেষ্টা করেনি বলে অভিযোগ।

বিষয়টি জানাজানি হতেই নেহা বাড়ি ছেড়ে পালানোর চেষ্টা করে বলে অভিযোগ। তখন শ্বশুরবাড়ির লোকেরা তার মোবাইল কেড়ে নেয়। যা পুলিশকে জমা দেওয়া হয়েছে। বালি থানায় নেহার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন আমনের বাবা। পুলিশ মঙ্গলবার নেহাকে গ্রেফতার করে। আজ হাওড়া আদালতে পেশ করা হলে তাকে ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেওয়া হয়।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More