হাসপাতালের দোরে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা পোষ্যের! ভিডিও দেখে মুখে হাসি, চোখে জল সকলের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পোষ্যের থেকে বড় বন্ধু কেউ হয়না! আর কুকুরের মতো শর্তহীনভাবে  ভালবাসতে ক’জনই বা পারে? একটু ভালবাসা পেলেই, সবটা উজাড় করে দেয় তার মালিকের জন্য। আবারও সেইরকমই প্রভু ভক্তির ভিডিও ভাইরাল হয়েছে ইন্টারনেটে। তুরস্কের একটি হাসপাতালের বাইরে তার মালিকের জন্য অপেক্ষা করতে দেখা গেল একটি কুকুরকে।

বনকুকের মালিক মস্তিষ্কের চিকিৎসা করানোর জন্য ভর্তি হন হাসপাতালে। মিশ্র প্রজাতির এই কুকুরটি যেন নতুন করে ভালবাসার, ভরসার ইতিহাস রচনা করল। ৬৮ বছরের সেন্টুর্কের সঙ্গে তার রয়েছে মানসিক সম্পর্ক। তাই মালিককে ছেড়ে থাকার কথা ছোট্ট পোষ্যটি ভাবতেও পারে না।

গত ১৪ জানুয়ারি সেন্টুর্ককে ব্রেন এম্বলিজমের জন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে, বনকুকও তাঁর সঙ্গে আসে। সুন্দর হ্যাজেল চোখের জন্যই কুকুরটির নাম দেওয়া হয় বনকুক। তার মালিককে কোথায় নিয়ে যাওয়া হল, তা দেখতেই সে আসে। রাখে কড়া নজরদারি!

তবে হাসপাতালের এই নতুন অতিথিকে যত্ন করেছেন অনেকেই। নিয়মমতো খাওয় দাওয়া করিয়েছেন কুকুরটিকে হাসপাতালের স্টাফরা। কুকুরটি খুবই ভাল, সে কাউকেই কোনওরকম আক্রমণ করেনি বরং সবাইকে আনন্দ দিয়েছে। তাকে দেখে হাসপাতলের সকলেই খুব খুশি হয়েছেন। এমনকি সেন্টুর্কের মেয়ে বনকুককে বাড়ি নিয়ে যেতে চাইলেও সে বাড়ি যেতে চায়নি তার মালিককে ছেড়ে। টানা ছয়দিন ধরে সে হসপিটালের দরজার সামনে অপেক্ষা করেছে তার মালিকের জন্য।

সেন্টুর্ককে যখন হাসপাতাল থেকে ছুটি দেওয়া হয় তখন সে দৌড়ে যায় তার মালিকের কাছে, ঘুরতে থাকে হুইলচেয়ারের পাশ দিয়ে। সেই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়াতে ব্যাপকভাবে ভাইরাল হয়। এমন দৃশ্য চোখে জল নিয়ে আসে নেটিজেনদের। সেন্টুর্ক বলেন, “ও এমন একজন আমার জীবনে, যে সবসময় আমাকে শুধু আনন্দই দিয়েছে। ভাল রেখেছে।” প্রভুভক্তির এমন দৃশ্য দেখে স্বাভাবিকভাবেই আল্পুত সকলে।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More