ডায়াবেটিক রোগীদের মোক্ষম দাওয়াই গ্রিন জুস, কেন খাবেন জেনে নিন

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ভারতবর্ষকে সারা বিশ্বের বহু মানুষ ‘দ্য ডায়াবেটিস ক্যাপিটাল অফ দ্য ওয়ার্ল্ড’ বলেন। এই মুহূর্তে প্রায় ৭০ মিলিয়ন দেশবাসী ডায়াবেটিসে ভুগছেন। এর মধ্যে ডায়াবেটিস ২-এর সম্ভাব্য কারণ হিসেবে ডাক্তাররা জানাচ্ছেন, অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন ও ভুল ডায়েট। একটু সচেতনতা বাড়ালেই, সঠিক পদ্ধতিতে খাওয়া-দাওয়া করলে শরীরের ব্লাড সুগার লেভেল কন্ট্রোলে থাকতে পারে‌। কখনও আবার পুরোপুরি সুস্থও হয়ে উঠতে পারেন বহু মানুষ।


ডায়াবেটিক রোগীরা সাধারণত জুস জাতীয় পানীয় এড়িয়ে যান।‌ চিনি, মিষ্টি থাকে বলেই খেতে ভয় পান কেউ কেউ। কিন্তু এই গ্রিন জুস একেবারে পুষ্টিগুণে ভরপুর। যা খেলে শরীরের ব্লাড সুগার লেভেল ঠিক থাকে। পরিবারের কোনও সদস্য ডায়াবেটিক পেশেন্ট হলে, তাঁর সঙ্গে যেকোনও মানুষই প্রতিদিন সকালে এই গ্রিন জুস খেলে উপকার পাবেন।

•কখন খাবেন

ডাক্তাররা পরামর্শ দিচ্ছেন প্রতিদিন সকালে খালি পেটে এই জুস নিয়মিত খেলে ভীষণ উপকার পাবেন। ডায়াবেটিস টাইপ ১, টাইপ ২, গ্যাস্ট্রোইনটেস্টিনাল ডায়াবেটিস রোগীরা চটজলদি ফলাফলও পাবেন খেলে।

•কীভাবে বানাবেন

নিজেদের পছন্দমতো ৪ থেকে ৬টা সবজি, ফল নিয়ে এটি সহজে বানিয়ে ফেলতে পারবেন। যেমন সবুজ আপেল, শশা, লেবু, কালে, বাঁধাকপি, বিট, পালংশাক, আদা, টমেটো, রসুন। একটি ব্লেন্ডারে কুচিকুচি করে কেটে, জল দিয়ে মিশিয়ে বানিয়ে ফেলতে পারবেন এই গ্রিন জুস।

•গ্রিন জুসের উপকারিতা

১. এই জুসের মধ্যে থাকে প্রচুর পরিমাণে আয়রন, ভিটামিন এ, সি, কে।

২. ডায়াবেটিসের সঙ্গে সঙ্গে হার্টের অসুখ, হাইপারটেনশন কমাতেও সাহায্য করে।

৩. শরীরে ইমিউনিটি বুস্ট করে। সঙ্গে এনার্জি লেভেলও বাড়িয়ে তোলে।

৪. অ্যান্টি অক্সিডেন্টে ভরপুর বলেই শরীরের অন্যান্য রোগব্যাধি কমাতেও সাহায্য করে।

৫. যাবতীয় টক্সিন বের করে দেয়। রক্তও পরিশুদ্ধ করে।

৬. মেটাবলিজম বুস্ট করে। ফলে একদিকে যেমন এনার্জি পাওয়া যায়, তেমনই ডায়াবেটিসের রিস্কও কমিয়ে দেয়।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More