বর্ধমানে দুই খোকনের দাপট, ভোটের পরেও তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে শান্তি নেই মানুষের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ভোট পরবর্তী অশান্তিতে উত্তপ্ত বর্ধমান। গতকাল পঞ্চম দফার নির্বাচনে বর্ধমান শহরের ভোটগ্রহণ পর্ব সম্পন্ন হয়েছে। কিন্তু রাজনৈতিক হিংসার আবহ যে সেখানে এখনও জারি, রবিবার সকালের ঘটনার দিকে চোখ রাখলেই তা পরিষ্কার হয়।

বর্ধমান শহরের লক্ষ্মীপুর মাঠে এদিন তৃণমূল বিজেপি সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে পরিস্থিতি। দু-পক্ষের দ্বন্দ্বে কার্যত রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় গোটা এলাকা। স্থানীয় ক্লাব এবং বেশ কিছু বাড়িতে চালানো হয় ভাঙচুর। এমনকি আক্রমণের হাত থেকে রেহাই পাননি মহিলা এবং শিশুরাও।

মূলত বর্ধমানের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী খোকন দাস এবং বিজেপি নেতা খোকন সেনের দ্বৈরথেই উত্তাপ ছড়াচ্ছে এলাকায়। গতকাল ভোট চলাকালীন সময়েও সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েছিল দুই শিবির। কেন্দ্রীয় বাহিনীর নিরাপত্তার ঘেরাটোপে শুরুর দিকে ভোট শান্তিপূর্ণ হলেও বেলা গড়াতেই বিক্ষিপ্ত অশান্তির খবর আসতে থাকে। এমনকি রাতের দিকে তৃণমূলের তরফে থানার সামনে ধর্নাও দেওয়া হয়। অশান্তির সেই রেশ কাটেনি ভোটের পরের দিনও।

এ প্রসঙ্গে বিজেপি জেলা সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য খোকন সেন বলেছেন, “খোকন দাস একজন মাফিয়া। তাঁর আর আব্দুর রবের বাহিনী এলাকায় সন্ত্রাস ছড়াচ্ছে। মহিলা শিশু কাউকেই ওরা ছাড়ছে না। হারার ভয়ে ওরা বিচলিত।” শুধু তাই নয়, খোকন দাসের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেওয়া হলে মেয়েরাই এবার আইন হাতে তুলে নেবে বলেও হুমকি দিয়েছেন গেরুয়া নেতা।

অন্যদিকে খোকন দাস অভিযোগের আঙুল তুলেছেন বিজেপি নেতার দিকেই। তিনি বলেছেন, “গত রাতে বেশ কিছু বাড়িতে ভাঙচুর চালিয়েছে বিজেপি কর্মীরা। ক্লাবে হামলা চালিয়েছে, মহিলাদের মেরেছে।” তিনি আরও বলেন, “ওরা ভাবছে ওরা ক্ষমতায় এসে গেছে। প্রশাসন বিজেপির কাছে বিক্রি হয়ে গেছে। কিন্তু আমরা চুপ করে বসে থাকবো না। নিজেদের কর্মী-সমর্থকদের আমরাই রক্ষা করবো।”

দুই খোকনের দাপটে ভোটের পরেও আতঙ্ক পিছু ছাড়ছে না বর্ধমানের বাসিন্দাদের। তৃণমূল হোক বা বিজেপি, কোনও পক্ষই যে এক চুল জমি ছাড়তে রাজি নয়, তা পরিষ্কার হয়ে গেছে। পুলিশের হস্তক্ষেপেও এখনও পর্যন্ত সমস্যার সম্পূর্ণ সুরাহা হয়নি।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More