বিশ্বভারতীর শতবর্ষ উপলক্ষে ৬ পৌষ বিশেষ অনুষ্ঠান মোহর বীথিকায়

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ৮ পৌষ বিশ্বভারতীর প্রতিষ্ঠা দিবস। এমনিতেও পৌষ মাস শান্তিনিকেতনের প্রতিটি মানুষের কাছে একটি বিশেষ মাস হিসেবে নির্ধারিত। ১৩২৮ বঙ্গাব্দের ৮ পৌষ রবীন্দ্রনাথের উপস্থিতিতে বিশ্বভারতীর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেছিলেন আচার্য ব্রজেন্দ্রনাথ শীল। তারই শতবর্ষ পূর্ণ করতে চলেছে এ বছর। সেই উপলক্ষে ৬ পৌষ, ২২ ডিসেম্বর শান্তিনিকেতনের মোহর-বীথিকা অঙ্গনে এক মনোজ্ঞ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।
৭ পৌষ মহর্ষির দীক্ষার দিন। শান্তিনিকেতনের বার্ষিক উৎসব প্রসঙ্গে একজায়গায় রবিঠাকুর লিখেছিলেন – “শান্তিনিকেতনের সাম্বৎসরিক উৎসবের সফলতার মর্মস্থান যদি উৎঘাটন করে দেখি তবে দেখতে পাব, এর মধ্যে সেই বীজ অমর হয়ে আছে, যে বীজ থেকে এই আশ্রম-বনস্পতি জন্ম লাভ করেছে; সে হচ্ছে সেই দীক্ষাগ্রহণের বীজ।…. সেই ৭ পৌষ এই শান্তিনিকেতন আশ্রমকে সৃষ্টি করেছে এবং এখনও প্রতিদিন একে সৃষ্টি করে তুলেছে।”এবছর ৭ পৌষ মহর্ষির দীক্ষার ১৭৮ তম বছর। আশ্রম প্রতিষ্ঠার ১৫৮তম, মন্দির প্রতিষ্ঠার ১৩০তম, ব্রহ্ম-বিদ‍্যালয় প্রতিষ্ঠার ১২০ তম, বিশ্বভারতীর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের ১০৩তম এবং বিশ্বভারতী সূচনার (পরিষদ গঠনের) শততম বছর। এই উপলক্ষে আগামী ২২ ডিসেম্বর, বাংলায় ৬ পৌষ ১৪২৮ মোহর-বীথিকা অঙ্গনে এক বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। আয়োজক বাংলা লাইভ ডট কম এবং মোহর-বীথিকা অঙ্গন।এদিন বিশ্বভারতীর পরিষদ গঠনের শতবর্ষ স্মরণে মাল্টি ডিসিপ্লিনারি আর্ট স্পেসে সকাল ৮.৩০ মিনিটে আনুষ্ঠানিকভাবে বিশেষ উপাসনা ও একটি গ্রন্থ প্রকাশের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। ইতিপূর্বে বহু গুণীজনের পদধূলি পড়েছে এই প্রাঙ্গণে। প্রয়াত রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী কণিকা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাসভবনকে কেন্দ্র করে মোহর-বীথিকা অঙ্গনের এই অনুষ্ঠানের মূল উদ্দেশ্য শান্তিনিকেতন আশ্রমের গড়ে ওঠার ইতিহাস, শিক্ষা, সংস্কৃতি তথা অতীত ঐতিহ্যকে ধারণ ও বহন করা।এদিন যে বিশেষ স্মারকগ্রন্থটি প্রকাশ করা হবে, তাতে লিখেছেন পবিত্র সরকার, মানবেন্দ্র মুখোপাধ্যায়, গৌতম ভট্টাচার্য, প্রণবরঞ্জন রায় ,অমিত্রসূদন ভট্টাচার্য, অশোক কুমার মুখোপাধ্যায়, সুশোভন অধিকারী, বিশ্বজিৎ রায়ের মতো প্রমুখ বিশিষ্টজনেরা।

শান্তিনিকেতনের উপাসনার আঙ্গিকেই সমগ্র অনুষ্ঠানটি সাজানো হয়েছে। গুরুদেব রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এবং ঠাকুরবাড়ির অন্যান্যদের রচিত ব্রহ্মসংগীত এই উপাসনার এক বড় অংশ জুড়ে থাকবে, এমনটাই জানালেন বিশিষ্ট রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী ঋতপা ভট্টাচার্য। ইনি প্রয়াত প্রবাদপ্রতীম রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী কণিকা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নিকট আত্মীয়া

ঋতপা ভট্টাচার্য

চৈতালি দত্তের সঙ্গে কথোপকথনে বাংলা লাইফের পক্ষে মৌসুমী দত্ত রায় জানালেন, ‘বাংলা লাইভ শুধু একটি আন্তর্জাতিক সাহিত্য পত্রিকা নয়, একটি সামাজিক ভাবনা-চিন্তা ভাগ করে নেওয়ার মেলবন্ধনও বটে। বন্ধুত্ব, ভালোবাসা, ভালো চিন্তা, ভালোথাকার প্রচেষ্টা। এরকম একটা উদ্যোগে অংশগ্রহণ করতে পেরে ভীষণ ভালো লাগছে।” এদিনের এই বিশেষ উপাসনায় আচার্যের ভূমিকায় থাকবেন বিশিষ্ট আশ্রমিক ও পাঠভবনের প্রাক্তন অধ্যক্ষ সুপ্রিয় ঠাকুর এবং মন্ত্রপাঠে প্রাক্তন অধ্যাপিকা কল্পিকা মুখোপাধ্যায়। এছাড়াও উপস্থিত থাকবেন চন্দন মুন্সী, অঙ্কন রায়, প্রিয়ম মুখোপাধ্যায়, নিবেদিতা সেনগুপ্ত, ঋতপা ভট্টাচার্য, শরণ্যা সেনগুপ্ত, ঋতজা চৌধুরী প্রমুখ বিশিষ্টজনেরা। থাকবেন মধুজা চট্টরাজ (সঙ্গীতে), নীলাঞ্জনা সেনমজুমদার, অভীক ঘোষ (পাঠে) এবং
যন্ত্রানুষঙ্গে থাকবেন সীতেশ হালদার, সৌগত দাস, সুতনু সরকার, দিলীপ বীরবংশী, বিশ্বায়ন রায় প্রমুখেরা।
সমগ্র অনুষ্ঠানটির পরিকল্পনা ও পরিচালনা দায়িত্বে রয়েছেন প্রিয়ম মুখোপাধ্যায়।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.