ফুঁসছে সমুদ্র, দুলছে জাহাজ! নরওয়ের সাগরে রোমহষর্ক উদ্ধার অভিযান, দেখুন ভিডিও

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ঠিক যেন হলিউডের টানটান অ্যাডভেঞ্চার ফিল্ম। পরতে পরতে উত্তেজনা। কী হয়, কী হয়! ফুঁসছে সমুদ্র। পাহাড়প্রমাণ একেকটা ঢেউয়ের ঝাপ্টায় আকুলিবিকুলি খাচ্ছে আস্ত জাহাজ। আয়তন কিংবা ওজনে সেটাও কম কিছু নয়। কিন্তু উঁচু উঁচু ঢেউয়ের ধাক্কায় উপর থেকে জাহাজকে নিছকই খেলনাপুতুল বলে মনে হচ্ছে। আকাশে চক্কর কাটছে হেলিকপ্টার। বিশেষ পোশাকে তড়ঘড়ি নেমে আসছেন উদ্ধার বাহিনীর লোকজন। তারপর শক্তপোক্ত দড়ি বেয়ে তুলে আনছে আটকে পড়া কর্মীদের। ঝাঁচকচকে ক্যামেরা আর গ্রাফিক্সের কাজে এহেন দৃশ্য ফিল্মি দুনিয়ায় কম নেই। কিন্তু এবার আর রুপোলি পর্দা নয়। বাস্তবেই ‘ম্যান ভার্সেস ওয়াইল্ড’-এর ছবি ধরা পড়ল নরওয়েজীয় সাগরে।

সোমবার ‘এমস্লিফট হেন্ড্রিকা’ নামে ডাচ কার্গো জাহাজ জার্মানি থেকে নরওয়ের উদ্দেশে পাড়ি দেয়। পথে তেমন অসুবিধা চোখে পড়েনি কারও। কিন্তু সন্ধে গড়াতেই আবহাওয়া বদলাতে শুরু করে। প্রথমে ঝোড়ো হাওয়া। তারপর উদ্দাম বৃষ্টি। রাতের সমুদ্রের তখন এক অন্য চেহারা। বিপদ বুঝে তড়িঘড়ি এসওএস পাঠান জাহাজের ক্যাপ্টেন।

পরদিন ভোরের আলো ফুটতেই হেলিকপ্টারে চড়ে হাজির হয় উদ্ধারবাহিনী। মোট ১২ জন নৌকর্মী আটকে রয়েছেন বলে আগেভাগে খবর ছিল। কিন্তু সবাইকে তো একসঙ্গে তুলে আনা সম্ভব নয়৷ তাই ঠিক হয়, দু’ভাগে চালানো হবে অভিযান। প্রথম ধাপে আনা হবে আটজনকে। তারপর বাকি চারজনের পালা।

অপারেশন চলাকালীনই ঘটনার ভিডিও রেকর্ড করেন এক উদ্ধারকর্মী। সেখানে দেখা যাচ্ছে, বারো জন নৌকর্মী জাহাজের ডেকে দাঁড়িয়ে রয়েছেন। তাঁদের লক্ষ করে হেলিকপ্টার থেকে লম্বা দড়ি ছোড়া হচ্ছে। এরপর টিমের একজন বিশেষ পোশাক পরে নেমে গিয়ে সেই দড়ি বেয়ে একজন করে তুলে আনছেন।

আটজনকে এই কায়দাতেই উদ্ধার করা হয়। কিন্তু ঠিক তখনই বিপদ আরও ঘনিয়ে ওঠে। ঢেউয়ের রোষ নিমেষের মধ্যে কয়েক গুণ বেড়ে যায়৷ তাই বাধ্য হয়ে প্রাণে বাঁচতে জাহাজের দু’জন ক্রু মেম্বার সারভাইভাল স্যুট গায়ে চড়িয়ে সমুদ্রে লাফ দেন। যদিও উদ্ধারবাহিনীর লোকেরা পরে তাঁদের তুলে আনেন।

নরওয়ে প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে, জাহাজের ইঞ্জিন বিগড়ে যাওয়াতেই এই বিপত্তি। অবিলম্বে ব্যবস্থা না নিলে দশাসই জাহাজটির সমুদ্রে তলিয়ে যাওয়া স্রেফ সময়ের অপেক্ষা। ওই কার্গো জাহাজে ৩৫০ কিউবিক মিটার জ্বালানি তেল, ৭৫ কিউবিক মিটার ডিজেল এবং লুব্রিকেটিং ওয়েল রয়েছে৷ কিন্তু অশান্ত প্রকৃতির মধ্যে কোনও ব্যাপক উদ্ধার অভিযান চালানো কার্যত অসম্ভব। তাই ঝড়-ঝঞ্ঝা কমলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন নরওয়ের কোস্টাল অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের প্রধান হান্স-পিটার মর্টেন্সলোম।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More