কোভিড-ঝড়ে বেসামাল রাজধানী, সপ্তাহান্তে কার্ফু ঘোষণা দিল্লিতে, বন্ধ জিম-স্পা-রেস্তরাঁ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: এবার উইকেন্ড কার্ফু দিল্লিতেও। গত কয়েক দিনে যে হারে বাড়ছে কোভিড সংক্রমণ, তাতে একরকম বাধ্য হয়েই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আজ, বৃহস্পতিবার দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল ও লেফ্টন্যান্ট গভর্নর অনিল বাউজালের বৈঠকের পরেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে ও ঘোষণা করা হয়েছে।

বৈঠকের পরে কেজরিওয়াল সাংবাদিক বৈঠক করে জানিয়েছেন, ১৭ এপ্রিল থেকে দিল্লিতে সপ্তাহান্তের কার্ফু জারি হবে। শুক্রবার রাত ১০ টা থেকে সোমবার সকাল ৬টা পর্যন্ত দিল্লিতে এই কার্ফু জারি থাকবে। শুধু অতি জরুরি পরিষেবা যেমন হাসপাতাল যাওয়া, এয়ারপোর্ট যাওয়া, ওষুধের দোকান, দুধের দোকান চালু থাকবে। সপ্তাহান্তে যাতে যে কোনও জমায়েতের সংখ্যা কম হয়, তার জন্যই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন কেজরিওয়াল।

বন্ধ থাকবে সমস্ত রেস্তরাঁ, মল, জিম, পার্লার। হোম ডেলিভারির অনুমতি আছে। সিনেমা হল চালাতে হবে ৩০ শতাংশ দর্শক নিয়ে। বিয়ের অনুষ্ঠানে যাওয়ার জন্য বিশেষ পাসের ব্যবস্থা করা হবে। বেসরকারি অফিসগুলিতে ন্যূনতম কর্মী নিয়ে কাজ চালানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বেশিরভাগ কর্মীদের ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’ করার পক্ষে সওয়াল করা হয়েছে।

গতকাল স্বাস্থ্য মন্ত্রকের রিপোর্ট দিল্লিতে দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ১৭ হাজার ২৮২। সব রেকর্ড ভেঙে এই সংখ্যাই এযাবৎ সর্বোচ্চ। শুধু তাই নয়, দিল্লিতে গত ২৪ ঘণ্টায় কোভিড আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা ১০৪। মাত্র ১০ দিনের মধ্যেই আক্রান্তের সংখ্যা দ্বিগুণ হয়ে গিয়েছে। স্পষ্টতই করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের ধাক্কায় এবার বেসামাল পরিস্থিতি দিল্লিতে। এই অবস্থায় নাইট কার্ফু জরুরি বলে মনে করেছে দিল্লি সরকার। কেজরিওয়াল এদিন কার্ফুর ঘোষার পাশাপাশি জানান, সকলে মাস্ক এবং সামাজিক দূরত্ববিধি যাতে মেনে চলে, সেদিকে নজর রাখা হবে।

একই সঙ্গে সাধারণ মানুষকে আশ্বস্ত করতে কেজরিওয়াল বলেন, দিল্লিতে করোনা রোগীর বেডের অভাব নেই। হয়তো কোনও একটি হাসপাতালে বেড না থাকতে পারে, তবে গোটা দিল্লিতে বেড নেই এমন নয়।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More