‘ফল ভয়ঙ্কর হতে পারে’, করোনা রুখতে পূর্ণ লকডাউন আর নয়, মত হু-এর মুখ্য বিজ্ঞানী স্বামীনাথনের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দেশে যেভাবে দিনদিন করোনাভাইরাস সংক্রমণ বেড়েই চলেছে, তাতে ফের সর্বত্র লকডাউন জারি হচ্ছে কিনা, সেই জল্পনা অব্যাহত। তার মধ্যেই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু)র মুখ্য বিজ্ঞানী ডঃ সৌম্য স্বামীনাথন পূর্ণ লকডাউনের ফল ভয়ঙ্কর হতে পারে বলে অভিমত জানিয়ে সে ব্যাপারে সাবধান করলেন। তিনি করোনার দ্বিতীয় ঢেউ দেশের নাগরিকদেরই সামলে নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। বলেছেন, তৃতীয় ঢেউয়ের কথা ভাবার আগে আমাদের দ্বিতীয় ঢেউ সামাল দিতে হবে। যথেষ্ট সংখ্যক লোককে ভ্যাকসিন দেওয়ার আগেই নিশ্চিত ভাবে অতিমারীর আরও ঢেউ আঘাত হানতে পারে।
প্রসঙ্গত, দেশে বর্তমানে কোভিশিল্ড ভ্যাকসিনের টিকা দেওয়া হচ্ছে। তার দুটি ডোজের মধ্যে ৮ থেকে ১২ সপ্তাহের ব্যবধান রাখার পরামর্শ দিয়েছে হু। সুতরাং প্রচুর মানুষকে ভ্যাকসিন দেওয়ার সময়, সুযোগ মিলবে। এই প্রেক্ষাপটে ডঃ স্বামীনাথন বলেছেন, বাচ্চাদের ভ্যাকসিন দেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে না, তবে দুটি ডোজের মধ্যে ব্যবধান বাড়িয়ে ৮ থেকে ১২ সপ্তাহ করা যেতে পারে।
আজ ৭ এপ্রিল দিনটা বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস হিসাবে পালিত হচ্ছে। এই উপলক্ষ্যে হু-এর আঞ্চলিক ডিরেক্টর ডঃ পুনম ক্ষেত্রপালের বক্তব্য, যেহেতু নতুন সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ চলছে, তাই ভ্যাকসিন প্রদানে গতি আনার চেষ্টা করা উচিত। ভারত দৈনিক গড়ে ভ্যাকসিনের ডোজ দেওয়ায় আমেরিকার পিছনেই আছে। আমেরিকা প্রতিদিন গড়ে ৩০ লাখের বেশি ডোজ দিচ্ছে, ভারত দৈনিক প্রায় ২৬ লক্ষ।
এদিকে পুণের এক বিশেষজ্ঞ এল এস শশীধারা লকডাউনের তীব্র বিরোধিতা করে বলেছেন, গত বছর এমনকী লকডাউনের সময়েও পুণেতে একাধিক হটস্পট ছিল। লকডাউন আংশিক উঠতেই সংখ্যাটা বাড়তে থাকল। তারপর ১০ দিনের লকডাউন জারি হল। অথচ হটস্পটের সংখ্যা বেড়েই চলল। লকডাউনের মধ্যে গোষ্ঠী সংক্রমণ অবাধে চলতে থাকায় ভাইরাসটি একটি এলাকায় ছোট ছোট গোষ্ঠীর মধ্যে ছড়াতেই থাকবে, আর যখন লকডাউন পুরোপুরি উঠে যাবে, তখন আরও দ্রুত সংক্রমণ ছড়াবে কেননা লোকে লকডাউনের বন্দিদশা ঘোচাতে অনেক বেশি ঢিলেমি দেখাবে।
এদিকে জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ও ক্লিনিশিয়ানদের একটি টিম মহারাষ্ট্রের ৩০টি জেলা সফর করে স্বাস্থ্য পরিকাঠামো জোরদার করা, টেস্টিং ও কনট্র্যাক্ট ট্রেসিং ও অন্য নানা বিষয়ে স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষকে সহায়তা দিতে এসেছে। পুণের ডাক্তারদের আশা, সামনের সপ্তাহ নাগাদ কোভিড-১৯ রোগীদের চিকিত্সায় সামিল হবে আরও হাসপাতাল।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More