একুশে কি শাপমুক্ত হবে পৃথিবী

জ্যোতিষীরা আশ্বাস দিচ্ছেন, ২০২০-র মতো অত খারাপ যাবে না ২০২১। কিন্তু এই বছরটাও হবে ঘটনাবহুল। গত ২১ ডিসেম্বর বৃহস্পতি ও শনি কুম্ভরাশিতে প্রবেশ করেছে। ২০২১ সালের বেশিরভাগ সময় দু’টি গ্রহ কুম্ভরাশিতেই থাকবে। এর ফলে আচমকা নানা পরিবর্তন আসবে। ন্যায্য দাবিদাওয়া নিয়ে মানুষ লড়াই করবে। প্রযুক্তিরও অগ্রগতি হবে তরতর করে।

যাঁরা নস্ত্রাদামুসের ভবিষ্যৎবাণীর অর্থ বোঝার চেষ্টা করেন, তাঁরা বলছেন খুব ভয়ের কথা। ষোড়শ শতকের সেই ফরাসি প্রফেট নাকি বলে গিয়েছেন, এই বছরেই নতুন এক জৈব অস্ত্র আবিষ্কার করবেন কোনও রাশিয়ান বৈজ্ঞানিক। তা থেকে মারণ ভাইরাস ছড়িয়ে পড়বে বিশ্ব জুড়ে। মানবজাতির ধ্বংসের সূচনা হবে।

এ তো গেল জ্যোতিষের কথা। অর্থনীতিবিদরা কী বলছেন? কেমন যাবে ২০২১?

২০২০ সালটা আর্থিকভাবে অনেককে শেষে করে দিয়ে গিয়েছে। বহু মানুষ চাকরি হারিয়েছেন। অনেকে মাইনে পাননি। বাধ্য হয়ে পুরানো পেশা ছেড়ে হকারি করতে নেমেছেন। শুধু ভারত নয়, সারা বিশ্বেরই এই অবস্থা। করোনা অতিমহামারীর ধাক্কায় অর্থনীতি বেহাল।

নতুন বছরের জন্য আশার কথা শুনিয়েছে আইএমএফ। ওই সংস্থার অর্থনীতিবিদরা বলছেন, ২০২০ সালে ৪.৪ শতাংশ সংকুচিত হয়েছে বিশ্ব অর্থনীতি। কিন্তু নতুন বছরে তা বিকশিত হবে ৫.২ শতাংশ হারে। অর্থাৎ অতিমহামারীর ধাক্কা সামলে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে আগের অবস্থানে ফিরবে পৃথিবী।

২০২০ সালে সরকারিভাবে মন্দার পর্যায়ে প্রবেশ করেছে ভারতের অর্থনীতি। কিন্তু আইএমএফ বলছে, ২০২১ সালে ফের ছন্দে ফিরবে এই দেশ। জিডিপি বিকশিত হবে ৮.৮ শতাংশ হারে। এশিয়ার মধ্যে সবচেয়ে দ্রুত হারে বিকশিত হবে ভারতের অর্থনীতি। এমনকি তা চিনকেও পিছনে ফেলে দেবে।

‘২১ সালে বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিধর দেশটিতে অনেক পরিবর্তন আসবে। তাতে প্রভাবিত হবে অন্যান্য দেশও। ২০ জানুয়ারি আমেরিকার প্রেসিডেন্ট পদে শপথ নেবেন জো বাইডেন। তিনি আগেই সিএনএন-কে বলেছেন, আমি আমেরিকার মানুষকে বলব, আরও ১০০ দিন মাস্ক পরে থাকুন। আপনাদের বরাবরের জন্য মাস্ক পরতে হবে না। আর ১০০ দিন পরলেই চলবে। তার মধ্যে ভ্যাকসিন দেওয়া হবে অন্তত ১০ কোটি মানুষকে।

বাইডেন জানিয়েছেন, ট্রাম্পের ‘আমেরিকা ফার্স্ট’ নীতি থেকে সরে আসবেন। গত জুন মাসে ট্রাম্প ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশনের সদস্যপদ ছেড়ে দেন। বাইডেনের আমলে আমেরিকা ফের ওই সংস্থায় যোগ দেবে। প্যারিস ক্লাইমেট এগ্রিমেন্টেও বাইডেন ফের যোগ দিতে পারেন বলে শোনা যাচ্ছে।

ভারতের রাজনীতিতে ২০২১ নিশ্চয় ঘটনাবহুল বছর হবে। এবছর গ্রীষ্মেই বিধানসভা নির্বাচন হবে পশ্চিমবঙ্গ, অসম, তামিলনাড়ু, কেরল আর কেন্দ্রশাসিত পুদুচেরিতে। বিজেপি ভোটে লড়বে মোদীর নামে। ২০২০ সালের শেষের দিকে এক সমীক্ষায় দেখা গিয়েছিল, কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে নানা মহলে ক্ষোভ থাকলেও দেশে এখনও একনম্বর জনপ্রিয় নেতা নরেন্দ্র মোদী। অসমে বিজেপি ক্ষমতায় আছে। সেখানে তাদের বিরুদ্ধে অ্যান্টি ইনকামবেন্সি ফ্যাকটর কাজ করবে। মোদীর ইমেজ তার মোকাবিলা করতে পারে কিনা সেদিকে নজর রাখবেন অনেকে। তামিলনাড়ু ও কেরল দখল করতে পারলে বিজেপির দক্ষিণ ভারত জয় সম্পূর্ণ হবে।

পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতি দিনকে দিন বেশ সিনেম্যাটিক হয়ে উঠেছে। শুভেন্দু অধিকারীর বিজেপিতে যোগদান নিঃসন্দেহে বড় ঘটনা। আগামী দিনে অনেকে তাঁকে অনুসরণ করলে আশ্চর্যের কিছু নেই। তার লক্ষণ এখনই দেখা যাচ্ছে। অনেকে বলছে, এইভাবে পরের দল ভাঙিয়ে কি ভোটে জেতা যায়?

যায় কি না যায় মে মাসেই বোঝা যাবে।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More