রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২৪

১৯ বছর পর পর্দায় ফিরছেন বনশালি-সলমন!

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ১৯৯৯। মুক্তি পেয়েছিল বলিউডের অন্যতম রোম্যান্টিক ছবি ‘হাম দিল দে চুকে সনম’। রাজস্থানের প্রেক্ষাপটে সমীর-নন্দিনীর প্রেমে মজেছিলেন ভারতবাসী। ১৮ জুন পরিচালক সঞ্জয় লীলা বনশালির হাত ধরে প্রথম বার বড় পর্দায় জুটি বেঁধেছিলেন সলমন খান এবং ঐশ্বর্য রাই।

নব্বইয়ের দশকে এ ছবি দেখেননি এমন কেউ বোধহয় এ দেশে নেই। এমনকী ছবি রিলিজের প্রায় ১৯ বছর পরেও এ ছবি ফ্যান ফলোয়িং একটুও কমেনি। বরং দিন দিন বেড়েছে। আর শুধু ছবির গল্পই নয় ইসমাইল দরবারের সুরে ছবির প্রতিটি গান আজও মনে গেঁথে আছে দর্শকদের। প্রেম নিবেদন করতে গেলে বহু প্রেমিক আজও বেছে নেন এই ছবির গানকেই।

কিন্তু ওটাই শুরু আর ওটাই শেষ। গত ১৯ বছরে বনশালির ছবিতে আর দেখা যায়নি ভাইজানকে। রণবীর কাপুর এবং সোনম কাপুরের ডেবিউ ছবি ‘সাওয়ারিয়া’-তে অবশ্য একটা ছোট চরিত্রে ছিলেন সলমন। কিন্তু কোথায় সেই সমীর? বনশালি-সলমন জুটির বড় পর্দায় ফিরে আসার জন্য কার্যত দর্শকরা অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করেছেন এতগুলো বছর।

অবশেষে বোধহয় এ বার অবসান হতে চলেছে সব অপেক্ষার। সম্ভবত বড় পর্দায় ফের জুটি বাঁধছেন সলমন-সঞ্জয়। এর আগে অবশ্য ‘পদ্মাবত’ ছবিতেও মুখ্য চরিত্রে কাজ করার কথা ছিল সলমন খানের। কিন্তু শেষ মুহূর্তে কোনও এক অজানা কারণে ভেস্তে যায় দর্শকদের সব উন্মাদনা। তবে এ বার বোধহয় আশার আলো দেখবেন ভাইজানের ফ্যানেরা।

সম্প্রতি এক সাংবাদিক সম্মেলনে সলমনকে তাঁর পরবর্তী ছবির ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, রেমো ডিসুজার সঙ্গে একটি ডান্স ফিল্মে কাজ করছেন তিনি। এ ছাড়াও চলছে দাবাং-৩, কিক-২, ভারত এবং শের খান এই ছবিগুলোরও কাজ। এর পরেই ভাইজান বলেন, আরও একটা ছবি হতে পারে সঞ্জয় লীলা বনশালির সঙ্গে। তবে সেটা স্ক্রিপ্ট তৈরি হওয়ার পর এবং পরিচালক এসে তাঁকে শোনানোর পরেই সম্ভব হবে।

সাংবাদিক সম্মেলনে ভাইজানের এই কথা নিয়েই শুরু হয়েছে জল্পনা। তাহলে কি ফের ১৯ বছর পর ফের জুটি বাঁধছেন সঞ্জয়-সলমন? এ প্রশ্ন এখন ঘুরছে সবার মনে। সঙ্গে উঠছে আরও এক প্রশ্ন। নেটিজেন থেকে ভাইজানের অনুরাগী এমনকী টিনসেল টাউনেও জোরদার জল্পনা শুরু হয়েছে ছবির নায়িকা কে হবে তা নিয়ে। অনেকে তো ইতিমধ্যেই বলছেন তাহলে কি সঞ্জয়-সলমনের পাশাপাশি এ ছবিতে সল্লু মিঞার নায়িকা হিসেবে দেখা যাবে রাই সুন্দরীকেও? এখন শুধুই সময়ের অপেক্ষা।

Shares

Leave A Reply