‘ওষুধে কিছু হবে না, মদেই বাঁচব’, লকডাউন শুনেই তড়িঘড়ি দোকানে লাইন দিলেন মহিলা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: করোনা পরিস্থিতি সামাল দিতে আজ থেকে ফের লকডাউনের পথে হেঁটেছে দিল্লি সরকার। সরকারের তরফে ঘোষণা করা হয়েছে আজ অর্থাৎ সোমবার রাত ১০টা থেকে আগামী সোমবার ভোর ৫টা পর্যন্ত রাজধানীতে কার্যকর করা হবে লকডাউন। সপ্তাহখানেকের এই কর্মবিরতিতে কি নেশার পাটও লাটে উঠবে? বলা বাহুল্য, তা নিয়ে চিন্তায় পড়েছিলেন দিল্লিবাসী।

লকডাউনের ঘোষণার পরপরই তাই রাজধানীর মদের দোকান গুলির বাইরে দেখা গেছে ক্রেতাদের লম্বা লাইন। খান মার্কেট, কন্নট প্লেসের গোল মার্কেটসহ একাধিক জায়গায় ছবিটা সোমবার দিনভর ছিল একইরকম। সপ্তাহখানেকের জন্য পর্যাপ্ত মদের জোগান মজুত রাখার জন্য গোটা দিল্লি শহরটাই যেন ছুটেছে দোকানে।

এদিন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে সাংবাদিকের সঙ্গে এক ক্রেতার কথোপকথন। সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম এএনআইয়ের প্রতিনিধি দিল্লির এক দোকানের সামনে লাইনে দাঁড়ানো মহিলাকে প্রশ্ন করেন কেন তিনি লাইন দিয়েছেন। জবাবে মহিলাকে বলতে শোনা যায়, “মদ ছাড়া আমি থাকতে পারবো না। ইনজেকশন আমার কোনও কাজে লাগবে না। একমাত্র মদেই কাজ হবে।”

ওই মহিলা আরও বলেন, “গত ৩৫ বছর ধরে আমি মদ খাচ্ছি। আর কখনও অন্য কোনও ডোজ আমায় নিতে হয়নি। দিনে এক পেগ করে আমি খাই। সেটাই আমার ডোজ।” কথা বলতে বলতে মহিলার মুখ থেকে ক্রমশ নীচের দিকে নামতে থাকে মাস্ক। করোনা নিয়ে যে তিনি বিশেষ চিন্তিত নন, ভিডিও থেকেই তা পরিষ্কার হয়। বলা বাহুল্য, মদের দোকানের সামনে যে লম্বা লাইনের ছবি ভিডিওতে ধরা পড়েছে সেখানেও সামাজিক দূরত্ব বিধির কোনও বালাই ছিল না।

ভিডিও দেখে রসিকতায় মেতেছেন নেট নাগরিকরা। তবে দায়িত্বজ্ঞানহীন আচরণের জন্য মহিলার সমালোচনাও করেছেন অনেকেই। “এই ধরনের মানুষই মৃত্যুর জন্য দায়ী”, বলেছেন কেউ কেউ। ভয়াবহ করোনা পরিস্থিতির মাঝে জনসচেতনতা কবে তৈরি হবে? প্রশ্নটা কিন্তু থেকেই গেল।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More