কোভিড থেকে সেরে উঠে ঋতুচক্রের সমস্যায় ভুগছেন মহিলারা! এর কারণ কী

দ্য ওয়াল ব্যুরো: করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের ধাক্কায় টালমাটাল গোটা দেশ। হু হু করে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। মৃত্যুও নেহাত কম নয়। সেই প্রথমের মতোই এখনও করোনা যতটা না ভয়ের হয়ে উঠেছে, তার চেয়েও বেশি সমস্যা বাড়াচ্ছে তার আফটার এফেক্টস। অর্থাৎ করোনা সেরে যাওয়ার পরবর্তী অসুস্থতা। আর তা যে কতরকম ভাবে প্রভাবিত করছে মানুষের শরীরকে, তা নিয়ে নিরন্তর চলছে গবেষণা।

ইতিমধ্যেই চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণের প্রভাবে ফুসফুসে বড় ক্ষতি থেকে যাচ্ছে কারও কারও। দুর্বল হচ্ছে হার্টও। কারও আবার মস্তিষ্কে পর্যন্ত প্রভাব ফেলছে এই সংক্রমণ। এবার জানা গেল, মহিলাদের মাসিক ঋতুচক্রও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে করোনার প্রভাবে!

পরিসংখ্যান বলছে, মহিলাদের মধ্যে করোনা সংক্রমণ এবং মৃত্যু, দুই হারই পুরুষদের তুলনায় কম। কিন্তু কোভিড থেকে সেরে ওঠার পরে বহু মহিলার ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে, মেনস্ট্রুয়াল সাইকেল নিয়ে সমস্যায় পড়ছেন তাঁরা।

কী কী সমস্যা দেখা দিচ্ছে?

  • কোভিড আক্রান্ত থাকার সময়ে ঋতুস্রাবের তারিখ থাকলেও তা হচ্ছে না।
  • কোভিড থেকে সেরে ওঠার পরে বদলে যাচ্ছে সাইকেল।
  • নির্দিষ্ট তারিখ মেনে ঋতুস্রাব হচ্ছে না।
  • যে কয়েক দিন চলার কথা আগেই ঋতুস্রাব বন্ধ হয়ে যাওয়া।
  • অতিরিক্ত ঋতুস্রাব হতে শুরু করা।
  • অনেকদিন ধরে ঋতুস্রাব চলছে কারও কারও।
  • এছাড়াও ক্লটিং, স্পটিং, মুড সুইং, খিটখিটে মেজাজ—এসবেও ভুগছেন কোভিডজয়ী মহিলারা।

চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন, মহিলাদের শরীরে ইস্ট্রোজেন ও প্রোজেস্টেরন হরমোন ক্ষরণ হয়। সেই হরমোনই কোভিড সংক্রমণ থেকে তাঁদের সুরক্ষা দিচ্ছে বলে মনে করা হচ্ছে। সেই কারণেই সম্ভবত তাঁদের উপসর্গ তীব্র নয়। কারণ মেনোপজ হয়ে গেছে এমন মহিলাদের ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে, তাঁদের উপসর্গ অনেক বেশি।

তবে করোনা কেন ঋতুচক্রে প্রভাব ফেলছে তা এখনও স্পষ্ট নয়।

চিকিৎসদের একাংশ জানিয়েছেন, এমনিতেই কোভিড পরিস্থিতির জন্য দীর্ঘদিন ধরে ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’ চলছে, ফলে প্রতিদিনের দৌড়ঝাঁপ অনেকটা কমে গিয়েছে। এর উপরে সংক্রমিত হলে শারীরিক পরিশ্রম অনেক কম হয়। রোজকার রুটিন বদলে যায়। সেই সঙ্গে বাড়ে মানসিক চাপ, বাড়তে পারে ওজনও। এই সবটা মিলেই প্রভাবিত হয় ঋতুচক্র।

এই সমস্যা থেকে মুক্তি মিলবে কীভাবে, তা নিয়ে সরাসরি কোনও সমাধানসূত্র দিতে পারেননি গবেষকরা। তবে বাড়িতে ফ্রি-হ্যান্ড ব্যায়াম, যোগাসন করার পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকরা। এর ফলে সুফল মিলতে পারে, ভাল থাকতে পারে শরীর।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More